• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

নিরাপদ সড়কের দাবি নিয়ে রাজপথে ক্যাথরিন

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৬ আগস্ট ২০১৮, ১০:৪৮ | আপডেট : ০৬ আগস্ট ২০১৮, ১১:০৭
ছবি: সংগৃহীত
নিরাপদ সড়কের দাবি নিয়ে মানববন্ধন করেছে চলচ্চিত্র সংসদ এবং চলচ্চিত্রকর্মীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শামসুন নাহার হল সংলগ্ন সড়কদ্বীপে স্থাপিত ‘তারেক মাসুদ-মিশুক মুনীর স্মরণ স্থাপনা’র সামনে গত শনিবার বিকেলে এক প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক বেলায়াত হোসেনের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন মানবাধিকারকর্মী হামিদা হোসেন, চলচ্চিত্রকার ক্যাথরিন মাসুদ, চলচ্চিত্র গবেষক ফাহমিদুল হক এবং চলচ্চিত্রকার প্রসূন রহমান।

ব্যানার-ফেস্টুন-প্ল্যাকার্ড নিয়ে মানববন্ধনে দাঁড়ায় চলচ্চিত্রকর্মীরা। এসময় বিভিন্ন প্ল্যাকার্ডে লেখা দেখা যায়, ‘বাংলাদেশের সড়ক-মহাসড়কে যা ঘটছে সেসব দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড। সারাদেশের সড়কে মৃত্যুর মিছিল বন্ধ করুন, গণপরিবহন ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা আনুন।’

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : গৃহবধূরা সবচেয়ে বড় সিইও: ঐশ্বরিয়া
-------------------------------------------------------

বিকেল ৫টায় মৌন মানববন্ধনের মাধ্যমে সমাবেশ শুরু হয়। এরপর সন্ধ্যায় শুরু হয় বক্তৃতা। এসময় বক্তারা বলেন, ‘সড়কে নৈরাজ্য চলছে বহুকাল ধরে। বারবার আমরা পিষ্ট হচ্ছি। আমাদের স্বপ্ন, আমাদের জীবন থমকে যাচ্ছে সড়কের মড়কে। এই পরিস্থিতি মানুষের সৃষ্টি। এসব মানুষ বাংলাদেশের বিচারব্যবস্থা, আইন, বাংলাদেশের সড়ক ব্যবস্থাপনার সব সিস্টেমকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছে বারবার। হত্যাকারীদের পিশাচের মতো দাঁতাল হাসি আমাদের পথে নামতে বাধ্য করছে, আমাদের শিশু-কিশোরদের পথে নামতে বাধ্য করেছে। মানুষের জীবন সবচেয়ে মূল্যবান, সেটি সড়কের কালো পিচের পিষ্ট হওয়ার জন্য নয়।’

বক্তারা আরও বলেন, প্রশিক্ষণবিহীন ও মাদকাসক্ত চালক-হেলপার, ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন গাড়ি পথে ছেড়ে দিয়ে রাষ্ট্র এসব হত্যাকে ‘দুর্ঘটনা’ বলতে পারে না। এগুলোকে দুর্ঘটনা বলে ছাড় দেয়ার কিছু নেই। বক্তৃতা শেষে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত মানুষের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করে আলোক প্রজ্বালন করা হয়।

সমাবেশ ও মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্রকার মসিহউদ্দিন শাকের, আবু সাইয়ীদ, জাঈদ আজিজ, পলাশ রসূল, হুমায়রা বিলকিস, তাসমিয়াহ আফরিন, অতনু পাটোয়ারী, হুমায়ন কবির, শিল্পী সুলেখা চৌধুরী, খন্দকার সুমন, আহমেদ মনিরুদ্দিন, চলচ্চিত্র সংসদকর্মী জহিরুল ইসলাম, মীর শামসুল আলম, রোদেলা নিরুপমা, হাবিবুর রহমান, অদ্রি হৃদয়েশ, সাদেক হোসেন সনি, সাউদা আক্তার, রাসেল আহমেদ, শিল্পী আহমেদ মনিরুদ্দিন, বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মৃদুল মামুন, চলচ্চিত্রকর্মী আবির শ্রেষ্ঠ, রিপন কুমার দাশ, সংগীতা অপরাজিতা, চলচ্চিত্র সম্পাদক চৈতালী সমাদ্দর, ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম, চলচ্চিত্রগ্রাহক বিদ্রোহী দীপন প্রমুখ।

আরও পড়ুন :

পিআর/এ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়