close
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

শাকিব-অপুর ডিভোর্স কেন?

বিনোদন ডেস্ক
|  ১১ নভেম্বর ২০১৭, ২০:৩০ | আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০১৭, ২৩:০২
জনপ্রিয় তারকা জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিয়ের খবর জানাজানি হবার আগে থেকেই তাদের নিয়ে প্রেম ও বিয়ের গুঞ্জনে সরব ছিল মিডিয়া। শাকিব-অপুর বিয়ের গুঞ্জন যে সত্যি ছিল তা জানা যায় এ বছর ১০ এপ্রিল। একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে ছয় মাস বয়সের ছেলে আব্রামকে সঙ্গে নিয়ে উপস্থিত হন অপু।

অবশ্য তাদের সম্পর্কের ব্যাপারে জানতে চাইলে শাকিব-অপু দুজনেই বলেছেন তেমন কিছু নেই দুজনের মধ্যে। ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিয়ে হয়। বিয়ের ব্যাপারটি কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে রেখে তারা দুজন সমানতালে ছবির শুটিং করে গেছেন।

অপু এই বিয়ের খবর গণমাধ্যমকে বলে দেয়ায় খুব চটে যান শাকিব। প্রথমে অপুকে মানবেন না বললেও পরে স্ত্রীর মর্যাদা দেন তাকে। কিন্তু দুজনের সম্পর্ক একদমই ভালো যাচ্ছিল না। যদিও অপু বারবার বলছেন তারা যেমন সফল জুটি তেমন সফল দম্পতিও।

তবে এই মুহূর্তে মিডিয়ার বাতাসে শুধুই ভাসছে শাকিব-অপুর বিবাহবিচ্ছেদের গুঞ্জন। শোনা যাচ্ছে তাদের ডিভোর্সের ঘোষণা যে কোনো সময় আসতে পারে। কিন্তু ভাঙনের প্রসঙ্গ নিয়ে কেউই মুখ খুলছেন না।

সূত্র বলছে, অপু বিশ্বাসের ওপর বেশ বিরক্ত শাকিব খান। আর এই বিরক্তির কারণ হলো শাকিবের ক্যারিয়ারে জন্য যা কিছু ক্ষতিকর কিংবা যারা এ নায়কের ক্ষতি চান তাদের সঙ্গেই অপুর মেলামেশা ও আড্ডা! গেলো ২৭ সেপ্টেম্বর তাদের একমাত্র ছেলের জন্মদিনে অপু এমন অনেককেই আমন্ত্রণ করেছিলেন যাদের শাকিব পছন্দ করেন না। এছাড়াও ঘর সংসার ছেড়ে স্ত্রীর ফের সিনেমায় ব্যস্ত হতে চাওয়া, জুনিয়র শিল্পীদের সঙ্গে ফটোশুট ও সিনেমায় চুক্তি হওয়া নিয়েও মন খারাপ তার।

অন্যদিকে অপুও চান না শাকিব হালের ক্রেজ নায়িকা বুবলীর সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করুক। এসব নিয়ে তাদের মান অভিমানের পালা বাড়ছেই। সবমিলে শিগগিরই যদি তাদের ডিভোর্স হয়ে যায় তাহলে অবাক হবার কিছু নেই!

এম  

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়