close
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

বিশ্বমঞ্চে পাটের পণ্য তুলে ধরবেন মিস বাংলাদেশ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৭ অক্টোবর ২০১৭, ১৪:১৫ | আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০১৭, ১৪:১৯
চীনে অনুষ্ঠিত বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন জেসিয়া ইসলাম। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আগামী ১৯ অক্টোবর  চীন যাচ্ছেন তিনি। বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতার আসরে বাংলাদেশের ঐতিহ্য তুলে ধরবেন জেসিয়া।

বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতার বাংলাদেশের আয়োজক প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজ থেকে জানানো হয়, বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশি প্রতিযোগীর মাধ্যমে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী সোনালী আঁশখ্যাত পাটের তৈরি বিভিন্ন পণ্য তুলে ধরা হবে। এসব পণ্যের মধ্যে জুতা থেকে শুরু করে সালোয়ার কামিজ, পাটের জামদানি, পাটের উপর মুদ্রিত জাতির পিতার ছবিসহ বিভিন্ন গিফট আইটেম থাকবে।

চীনে যাবার আগে আজ মঙ্গলবার(১৭ অক্টোবর) বিকেল ৪টায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। এতে উপস্থিত থাকবেন মিস বাংলাদেশে জেসিয়া এবং অন্তর শোবিজের কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশি মিস ওয়ার্ল্ড জেসিয়ার হাতে পাটের তৈরি ঐতিহ্যবাহী পণ্য তুলে দেবেন বাংলাদেশ সরকারের বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। সংবাদ সম্মেলনে অন্তর শোবিজ ও অমিকন এন্টারটেইনমেন্ট বিস্তারিত তুলে ধরবেন।

বাংলাদেশের জেসিয়াসহ ১১৭টি দেশের প্রতিযোগী; মিস ওয়ার্ল্ড এর ৬৭তম আসরে অংশ নিচ্ছেন। আগামী ৩১ অক্টোবর শিমেলং ওশান কিংডমে এবারের আসরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সুন্দরীদের সঙ্গে বাংলাদেশের জেসিয়াকে লড়তে হবে কয়েকটি বিভাগে। এর মধ্যে থাকছে টপ মডেল, ট্যালেন্ট, মাল্টিমিডিয়া, স্পোর্ট, বিউটি উইথ অ্যা পারপাজ এবং নতুন যুক্ত করা বিভাগ ‘হেড টু হেড চ্যালেঞ্জেস’।

আগামী ১৮ নভেম্বর স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় চীনের সানাইয়া শহরে শুরু হবে ৬৭তম মিস ওয়ার্ল্ডের চূড়ান্ত অনুষ্ঠান। আড়াই ঘণ্টার এই অনুষ্ঠানটি ডিজাইন করছে বেইজিং রাইজ। উপস্থাপনা করবেন টিম ভিনসেন্ট, মেগান ইয়ং ও স্টিভ ডগলাস।

নতুন মিস ওয়ার্ল্ডকে মুকুট পড়িয়ে দেবেন বর্তমান বিশ্বসুন্দরী স্টেফানি দেল ভালে। চীনের সানাইয়া সিটি এরেনায় ৬৭তম মিস ওয়ার্ল্ড চূড়ান্ত অনুষ্ঠানের মঞ্চকে ঘিরে থাকবে কঠোর নিরাপত্তা। অনুষ্ঠানটি ফিনিক্স টিভির মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ থেকে প্রথম বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেন আনিকা তাহের। এরপর ইয়াসমিন বিলকিস সাথী (১৯৯৫), রেহনুমা দিলরুবা চিত্রা (১৯৯৬), শায়লা সিমি (১৯৯৮), তানিয়া রহমান তন্বী (১৯৯৯) ও সোনিয়া গাজী (২০০০) অংশ নেন।

পিআর/ এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়