• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

প্রথম আয়কর সপ্তাহ ২৪-৩০ নভেম্বর

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৩ নভেম্বর ২০১৬, ১৬:৩০ | আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০১৬, ১৪:৫০
কর সংক্রান্ত সব রকম সেবা আরো সহজলভ্য করতে আসছে ২৪ থেকে ৩০ নভেম্বর উদযাপিত হচ্ছে আয়কর সপ্তাহ।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআর দেশে প্রথমবারের মতো এ আয়োজন করছে। একযোগে শুরু হওয়া এ কার্যক্রমে সারাদেশের ৩১টি কর অঞ্চলের ৬শ’ ৪৯ সার্কেল অফিস করদাতাদের চাওয়ামতো সুবিধা দেবে।

৩০ নভেম্বর আয়কর দিবস এবং রিটার্ন দাখিলের শেষ সময় সামনে রেখে করদাতাদের সুবিধা দিতেইা আয়কর সপ্তাহ উদযাপন। 

এ আয়কর সপ্তাহে করদাতারা কর অঞ্চলগুলোতে একই ছাদের নিচে করমেলার মতো কর সংক্রান্ত সব সেবা পাবেন। 
এবার ব্যক্তি শ্রেণীর আয়কর রিটার্ন দাখিলের সমসয়সীমা বেঁধে দেয়ার কারণে মূলত আয়কর সপ্তাহ পালনের এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

কর অঞ্চলগুলোতে রিটার্ন দাখিল, ই-টিআইএন গ্রহণ,অনলাইনে রিটার্ন দাখিলের জন্য ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড গ্রহণের মত সেবা সহজেই মিলবে।

করদাতারা নির্ধারিত সার্কেলে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে করে আনলেই কর সংক্রান্ত সব সেবা পাবেন। 

করদাতারা যাতে বাড়তি সেবা পেয়ে কর দিবস ৩০ নভেম্বরের মধ্যে রিটার্ন দাখিলসহ সব কাজ সম্পন্ন করতে পারেন, সেদিকটায় গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে জানালেন এনবিআর কর্মকর্তারা।কর কমিশনার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, কর সপ্তাহের মাধ্যমে অসচেতনতা ও বিড়ম্বনা দূর করে সহজভাবে কর প্রদানে উৎসাহ দেয়া হচ্ছে। 

এদিকে অর্থ বছরের প্রথম পাঁচ মাসেই নিবন্ধিত করদাতার সংখ্যা সাড়ে ২৩ লাখ ছাড়িয়ে যাওয়ায় এবার রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা অনেক বাড়বে প্রত্যাশা এনবিআরের।

করমেলার মতো কর সপ্তাহকালীন কর অঞ্চলগুলোতে করদাতাদের কাছ থেকে বিপুল সাড়া মিলবে আশা করা হচ্ছে।

সাবেক কর কমিশনার এসএম জাহাঙ্গীর আলমের ভাষ্য, চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আয়কর সপ্তাহ উদযাপনের এই কর্মসূচি বিশেষ সহায়ক হবে। আয়কর আদায় প্রক্রিয়া সহজ করতে এবং এ ব্যাপারে মানুষের সচেতন ও আন্তরিক অংশগ্রহণ বাড়াতে নেয়া বিভিন্ন উদ্যোগেরও প্রশংসা করেন তিনি।

কর আইনজীবি সোহরাব উদ্দিন এমপি বললেন, সরকারের নেয়া পদক্ষেপ শতভাগ ফলপ্রসূ করে তোলার জন্য দরকার এনবিঅার কর্মকর্তা ও করদাতাদের মধ্যে সাবলীল যোগাযোগ গড়ে তোলা। বলেন, এক্ষেত্রে ভীতিকর বাস্তবতার অবসান ঘটাতে  হবে। আইন প্রয়োগের পাশাপাশি আলাদা অডিট করার ঘোর সমালোচনা করেন তিনি। 

করদাতাদের কর প্রদানে উদ্বুদ্ধ করতে ২০১০ সাল থেকে প্রতি বছর আয়কর মেলার আয়োজন করে আসছে এনবিআর। এরই ধারাবাহিকতায় এ বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হয় সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা। এক্ষেত্রে ব্যক্তি শ্রেণির করদাতারা মেলায় রিটার্ন দাখিলে বেশি আগ্রহী হওয়ায়, মেলার পাশাপাশি এবার সারা দেশে কর সপ্তাহ উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনবিআর। 
সংস্থাটির কর্মকর্তারা জানান, ওয়ান স্টপ সার্ভিস না পেলেও কর অফিসে মেলার পরিবেশে রিটার্ন দাখিলের সুযোগ পাবেন করদাতারা।

২২ নভেম্বর পর্যন্ত অর্থবছরের প্রথম ৫ মাসেই নিবন্ধিত করদাতার সংখ্যা সাড়ে ২৩ লাখ অতিক্রম করায় এবার রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা অনেক বাড়বে প্রত্যাশা সংশ্লিষ্টদের।
৩০ নভেম্বরের পর এবার ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের রিটার্ন দাখিলের সময় আর বাড়াবেনা এনবিআর। এরপর জরিমানা দিয়ে রিটার্ন দাখিল করতে হবে।

এসজেড

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়