তামাক ব্যবহার রোধে উচ্চহারে রাজস্ব আরোপ করা জরুরি

প্রকাশ | ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২৩:৪৮ | আপডেট: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:০০

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে তামাকের উপর রাজস্বের হার তুলনামূলক কম। আমাদের আগামি বাজেটে অবশ্যই তামাকের ওপর কার্যকর রাজস্ব পদক্ষেপ বাড়াতে হবে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে তামাক ব্যবহার রোধে আগামি বাজেটে তামাকের উপর উচ্চহারে রাজস্ব আরোপ করা জরুরি। বললেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ সূচক : এফসিটিসি আর্টিক্যাল ৫.৩ বাস্তবায়ন প্রতিবেদন, বাংলাদেশ ২০১৮’ শীর্ষক এক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে পরিকল্পনা মন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীও এ ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করেছেন। তামাক ব্যবহার রোধ করে এসডিজি অর্জনে সকলের সম্মিলিতভাবে কাজ করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, এফসিটিসি বাস্তবায়নে কেবল সমর্থনই নয়, সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণও করতে চাই। এ ব্যাপারে আগের তুলনায় আরও বেশি শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, গবেষণায় আর্টিকেল ৫.৩-এর আলোকে সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য কোড-অব-কন্ডাক্ট তৈরি করার যে সুপারিশ এসেছে, সেটি এখন গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করতে হবে।

প্রজ্ঞা’র সমন্বয়ক হাসান শাহরিয়ার বলেন, গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোব্যাকো সার্ভে- গ্যাটস ২০১৭ অনুযায়ী, বাংলাদেশে ১৫ বছরের ঊর্ধ্বে তামাক ব্যবহারকারীর হার ৩৫ দশমিক ৩ শতাংশ বা ৩ কোটি ৭৮ লাখ। ২০০৯ সালে পরিচালিত প্রথম গ্যাটস জরিপে তামাক ব্যবহারকারীর এ হার ছিল ৪৩ দশমিক ৩ শতাংশ বা ৪ কোটি ১৩ লাখ।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা প্রজ্ঞা এবং অ্যান্টি টোব্যাকো মিডিয়া এলায়েন্স (আত্মা) যৌথভাবে এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে সাবের হোসেন চৌধুরী এমপি, ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস’র (সিটিএফকে) গ্রান্টস ম্যানেজার ডা. মাহফুজুর রহমান ভুঁঞা এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ন্যাশনাল প্রফেশনাল অফিসার ডা. সৈয়দ মাহফুজুল হক উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন : 

 

এমসি/জেএইচ