এখন থেকে পোল্ট্রি-ফিস ফিডের মোড়কেও পাটের বস্তা

প্রকাশ | ১২ আগস্ট ২০১৮, ১৭:৪৭ | আপডেট: ১২ আগস্ট ২০১৮, ১৮:১৪

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
প্রতীকী ছবি

পোল্ট্রি ও ফিস ফিডের মোড়কেও পাটের বস্তা ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এখন থেকে এ দুটি পণ্যসহ মোট ১৯টি পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহারের জন্য নির্ধারিত করা হলো।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০-এর ধারা ২২ এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সরকার পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার বিধিমালা, ২০১৩ এর অধিকতর সংশোধন করে পোল্ট্রি ও ফিস ফিড সংরক্ষণ ও পরিবহণে পাটের বস্তার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ঝাঁক বেঁধেছে ইলিশ, দামও কমছে
-------------------------------------------------------

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় আরও জানায়, আইন অনুযায়ী ৬টি পণ্য অর্থাৎ ধান, চাল, গম, ভুট্টা, সার ও চিনি পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহারের জন্য নির্ধারিত হয়েছে। পরে গতবছরের ২১ জানুয়ারি আরও মরিচ, হলুদ, পেঁয়াজ, আদা, রসুন, ডাল, ধনিয়া, আলু, আটা, ময়দা, তুষ-খুদ-কুড়াসহ মোট ১৭টি পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহারের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

‘পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০ এর ধারা-১৪ অনুযায়ী পাটের মোড়ক ব্যবহার না করলে অনূর্ধ্ব এক বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে। এ অপরাধ পুনরায় করলে সর্বোচ্চ দণ্ডের দ্বিগুণ দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

আইনটি সম্পূর্ণরূপে বাস্তবায়িত হলে প্রতিবছর ১০০ কোটিরও বেশি পাটের বস্তার চাহিদা সৃষ্টি হবে। স্থানীয় বাজারে পাট ও পাটজাত পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি পাবে, পাট চাষীরা পাটের ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত হবে এবং সর্বোপরি পাটের উৎপাদন বৃদ্ধিসহ পাটের শিল্প ও পরিবেশ রক্ষা পাবে।

এসআর