এক সিমে সব অপারেটর, বাড়লো অপেক্ষা

প্রকাশ | ০২ আগস্ট ২০১৮, ১১:২৯ | আপডেট: ০২ আগস্ট ২০১৮, ১২:১৮

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

মোবাইল ফোন নম্বর অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর বদলের (এমএনপি) প্রক্রিয়া আগস্ট মাসে চালু হওয়ার কথা থাকলেও তা হচ্ছে না। অর্থাৎ চলতি মাস থেকেই গ্রাহকরা এই সুবিধা নিতে পারবেন না। এর বদলে সুবিধাটি পেতে গ্রাহকদের আরও অন্তত দুই মাস অপেক্ষা করতে হবে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) সূত্র আরটিভি অনলাইনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

গত বছরের ৩০ নভেম্বর টেলিকম নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএনপি সেবার লাইসেন্স তুলে দেয় প্রযুক্তি কোম্পানি ইনফোজিলিয়ন বিডির হাতে। ওই সময়ে ১৮০ দিনে কাজ শেষ করে সেবা দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়। 

এ সেবা চালু হওয়ার পর গ্রাহকরা ৩০ টাকা ফি দিয়ে নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর পরিবর্তনের আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তার অপারেটর বদলে যাবে। পুনরায় অপারেটর পরিবর্তন করতে হলে তাকে ৯০ দিন অপেক্ষা করতে হবে।

নম্বর পরিবর্তনের ঝক্কিতে যেতে চান না বলে সেবায় সন্তুষ্ট না হওয়ার পরও অনেকে এতদিন অপারেটর বদলাতে পারেননি। এমএনপি চালু হলে তারা নম্বর ঠিক রেখেই অন্য অপারেটরে যাওয়ার সুযোগ পাবেন। ফলে অপারেটররাও তাদের সেবার মান উন্নত করতে চেষ্টা চালাবে বলে সরকার আশা করছে।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: সোনায় গরমিল: বাংলাদেশ ব্যাংকের আরও সতর্ক হওয়া উচিত
--------------------------------------------------------

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিটিআরসির এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সঙ্গে এ বিষয়ে বিটিআরসির একটি বৈঠক হয়েছে। ওই বৈঠক থেকে জানানো হয়েছে এ সেবা শুরু করতে আরও দুইমাস সময় লাগবে।

অপারেটররা এ সেবা চালুর জন্য সব প্রস্তুতি নিতে আরও দুই মাস সময় পাচ্ছেন। সব ধরনের সমস্যার সমাধান করেই এমএনপি সেবা শুরু করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, যাতে গ্রাহকরা কোনও ধরনের ভোগান্তিতে না পড়েন।

এর আগে গত এপ্রিলে অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটর অব বাংলাদেশ (অ্যামটব) থেকে এমএনপির জন্য আরও তিন মাস সময় নেওয়ার ঘোষণার প্রেক্ষিতে আগস্টে এই সেবা শুরুর আশ্বাস পাওয়া গিয়েছিল।

আরও পড়ুন:

এসআর