• ঢাকা সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫

মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবসায় ঢুকতে পারবে না ফোন অপারেটররা

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ৩১ জুলাই ২০১৮, ১৬:৩৮ | আপডেট : ৩১ জুলাই ২০১৮, ১৬:৪৬
ছবি প্রতীকী
যৌথ মালিকানায় একাধিক ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও এনজিওকে সঙ্গে নিয়ে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস (এমএফএস) বা মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান করা যাবে। তবে কোনও মোবাইল ফোন অপারেটর এই প্ল্যাটফর্মের অংশীদারী হতে পারবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংক সোমবার এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দিয়ে ‘মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস নীতিমালা-২০১৮’ জারি করেছে। 

আইনে বলা হয়েছে, ব্যাংকের নেতৃত্বে এমএফএস কোম্পানি করা যাবে। ব্যাংকের কমপক্ষে ৫১ শতাংশ মালিকানা থাকতে হবে। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ঋণ সংক্রান্ত কার্যক্রম করা যাবে না। তবে কোন ব্যাংকের অনুমোদনকৃত ঋণ মোবাইল ব্যাংকের মাধ্যমে বিতরণ এবং কিস্তি আদায় করা যাবে। 

“গ্রাহকের একাউন্টে টাকা জমা ও উত্তোলন ছাড়া অন্যকোন ধরনের লেনদেন করতে পারবেনা এজেন্টরা। এজেন্টদের তৃতীয় পক্ষ হিসেবে টাকা পাঠানো বা গ্রহণ করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।” 

সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেমস বিভাগ এমএফএসের লাইসেন্স দেবে। গ্রাহকের স্বার্থহানিকর কোন কাজ বা গুরুতর অপরাধ করলে লাইসেন্স বাতিল করতে পারবে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিটেন্স সংগ্রহ করে দেশে বিতরণ করা যাবে। তবে মোবাইল ব্যাংকের মাধ্যমে ক্রসবর্ডার লেনদেন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। মানিলন্ডারিং, সন্ত্রাসে অর্থায়ন ও হুন্ডি প্রতিরোধে প্রচলিত মানিলন্ডারিং আইন মেনে চলতে হবে এমএমএফগুলোকে। এর মাধ্যমে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর একাউন্টে টাকা জমাতে পারবেন গ্রাহকরা।

দেশে ১৮টি ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা রয়েছে। বিকাশ, রকেট, মাইক্যাশ, ইউক্যাশ, শিওরক্যাশ, এমক্যাশ এইগুলো জনপ্রিয়। প্রতিদিন গড়ে ১১০০ কোটি টাকা লেনদেন হয় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে।

আরও পড়ুন:

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়