• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

১৮৮ উপজেলার উন্নয়নে সরকারের ‘মাস্টারপ্ল্যান’

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৯ জুলাই ২০১৮, ১১:৫০ | আপডেট : ২৯ জুলাই ২০১৮, ১২:১১
পৌরসভা বাদে ১৮৮ উপজেলায় অবকাঠামো উন্নয়ন ও নাগরিকদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে  ‘মাস্টারপ্ল্যান’ হাতে নিয়েছে সরকার। এজন্য ‘উপজেলা শহর (নন-মিউনিসিপ্যাল) মাস্টার প্ল্যন প্রণয়ন ও মৌলিক অবকাঠামো উন্নয়ন’ শিরোনামে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

আজ রোববার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন হতে পারে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর বৃহৎ এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ৩৮০ কোটি টাকা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে রোববার পরিকল্পনা কমিশনের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে এটার কাজ শুরু হবে। ২০২২ সালের জুনের মধ্যে এর বাস্তবায়নের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। দেশের ৬৪ জেলার ১৮৩টি উপজেলায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে।

প্রকল্পের কার্যপত্রের তথ্য অনুযায়ী, পৌরসভার মর্যাদা পায়নি এমন ১৮৮টি শহরের উন্নয়নের জন্য এখনও বড় ধরনের কোনও একক প্রকল্প নেয়নি সরকার। এসব শহরের মৌলিক নাগরিক সুবিধা অর্থাৎ সড়ক ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা, স্যানিটেশন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ আরও অনেক সুবিধার ঘাটতি রয়েছে।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : বিমানে চিকিৎসা সেবা দেবে ইতিহাদ এয়ারওয়েজ
--------------------------------------------------------

এসব সুবিধাহীন শহরবাসীর জীবনযাত্রার মান ‍বৃদ্ধি ও পরিবেশের উন্নয়নের জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগ জরুরি ভিত্তিতে প্রকল্পটি পরিকল্পনা কমিশনে পাঠায়। গত বছরের ৩০ নভেম্বর প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন পায়। ওই সভায় নন মিউনিসিপ্যাল আরও ৫টি উপজেলা অন্তর্ভুক্ত করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

প্রকল্পটির মাধ্যমে ১৮৮টি উপজেলা শহরের জন্য মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা হবে। এর মধ্যে থাকবে ৫৬০ কিলোমিটার সড়ক, ৯৬০ মিটার ব্রিজ/কালভার্ট ও ২৭৪ কিলোমিটার ড্রেন পুনঃনির্মাণ এবং ১৮৩টি কসাইখানা এবং ৫৪৯টি পাবলিক টয়লেট নির্মাণ।

এর আগে দেশের ৪৯২টি উপজেলার মধ্যে ৩০৪টি উপজেলাকে বিভিন্ন ক্যাটাগরির পৌরসভায় উন্নীত করা হয়েছে।

এলজিইডি’র অপর একজন কর্মকর্তা বলেন, পৌরসভাবিহীন প্রত্যেক উপজেলা প্রস্তাবিত খসড়া এই প্রকল্পে মাস্টার প্লান প্রণয়নে ৪৮ লাখ এবং অবকাঠামো উন্নয়নে ৬ দশমিক ৩৭ কোটি টাকা পাবে।

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়