• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের দাম ২৯ মাসে সর্বনিম্ন

শাহীনুর রহমান
|  ১২ জুলাই ২০১৮, ১৫:৪৮ | আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৮, ১৬:২৩
ছবি সংগৃহীত
চলতি বছর বিশ্ববাজারে খাদ্য উৎপাদন প্রত্যাশার তুলনায় কম হবে- এমন পূর্বাভাসের মধ্যেও ২০১৮ সালে প্রথমবারের মতো কমেছে কৃষিজাত খাদ্যপণ্যের দাম। উল্লেখযোগ্য দাম কমেছে ভোজ্য তেলের। যা এখন গত ২৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে অবস্থান করছে। 

জুন শেষে জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা এফএও এর গড় খাদ্য মূল্যসূচক দাঁড়িয়েছে ১৭৩ দশমিক ৭ পয়েন্টে; যা গত মে মাসের চেয়ে ১ দশমিক ৩ শতাংশ কম।

এফএও এর তথ্য বলছে, বিশ্বব্যাপী গম, ভুট্টা এবং ভোজ্যতেলের দাম কম থাকায় সার্বিকভাবে মূল্যসূচকের পতন হয়েছে।

৫ ধরণের পণ্যের দাম নিয়ে জরিপ চালিয়ে প্রতি মাসে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক খাদ্য ও কৃষি সংস্থাটি। দানা জাতীয় খাদ্য ও তেল ছাড়া এ তালিকায় রয়েছে মাংস, দুগ্ধজাতীয় খাবার ও চিনি।

জুন মাসে দানা জাতীয় খাদ্যের দাম মে মাস থেকে ৩ দশমিক ৭ শতাংশ কমেছে। তবে তা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে এখনও ৮ শতাংশ বেশি। এ খাতের পণ্যে গম ও ভুট্টার নিম্নমুখী দামই বেশি অবদান রেখেছে, তবে বাড়তি ছিল চালের দাম।

জাতিসংঘের সংস্থাটি বলছে, সরবরাহ কিছুটা থমথমে হওয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে চালের দাম বেড়েছে। তবে চাহিদাও ছিল বেশি।

খাদ্যসূচক মূল্যে তেলের দাম কমেছে মে মাসের চেয়ে ৩ শতাংশ। দাম নেমে এসেছে ২৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে। জুনে পাম, সয়াবিন ও সূর্যমুখী সব ধরনের তেলের দাম কমেছে। এ নিয়ে পণ্যটির দর টানা ৫ মাস কমলো।

তবে দাম বেড়েছে মাংস ও দুগ্ধজাত পণ্যের। 

এফএও এর তথ্য অনুযায়ী- যুক্তরাষ্ট্র ও তার ব্যবসায়িক পার্টনার দেশগুলোর মধ্যে এখন বাণিজ্যযুদ্ধ নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিশেষ করে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে পণ্যের ওপর পাল্টাপাল্টি করারোপ। একইসঙ্গে ডলার শক্তিশালী হওয়া নতুন করে চাপ সৃষ্টি করছে।

চলতি বছর এফএও বিশ্বব্যাপী খাদ্য উৎপাদন নিয়ে পূর্বাভাস দেয়। যেখানে এ বছর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২.৫৮ বিলিয়ন টন; যা আগের বছর থেকে ৬৪ মিলিয়ন টন কম।

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়