• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

পাটপণ্যের বিকাশে হচ্ছে শেখ হাসিনা জুট টেক্সটাইল মিল

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৩ জুলাই ২০১৮, ১৫:১২ | আপডেট : ০৩ জুলাই ২০১৮, ১৬:২০
জাতীয় পাট দিবস-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউ থেকে গত মার্চে এক বর্ণাঢ্য পাট র‌্যালি ও ঢাকা-জামালপুর-ঢাকা রোড-শো’র আয়োজন করা হয়- ফাইল ছবি
সম্ভাবনাময় পাটশিল্পকে আরও এগিয়ে নিতে এবার নির্মিত হচ্ছে শেখ হাসিনা জুট টেক্সটাইল মিল।ময়মনসিংহ বিভাগের জামালপুরের মাদারগঞ্জে প্রায় ৫১৯ কোটি টাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় প্রকল্পটির অনুমোদন দেয়া হয়। একইসঙ্গে আরও ৭টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রকল্পগুলোতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ হাজার ৪৯৩ কোটি ৮ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন করা হবে ৩ হাজার ২৭৯ কোটি ২২ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে ব্যয় করা হবে ১৭৯ কোটি ৯৮ লাখ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ৩ হাজার ৩৩ কোটি ৮৮ লাখ টাকা।

একনেক সভা শেষে প্রকল্পগুলো নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

শেখ হাসিনা স্পেশালাইজ জুট টেক্সটাইল মিল প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক বাজারে বহুমুখী পাটপণ্য উৎপাদন বাড়াতেই এ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এর উদ্দেশ্য হচ্ছে- পাট ও তুলা সংমিশ্রণে সাশ্রয়ী মূল্যে সুতা, কাপড় ও তৈরি পোশাক (বিশেষ করে ডেনিম প্যান্ট, জ্যাকেট, শার্ট) ইত্যাদি তৈরি ও বিক্রি করে অতিরিক্ত রপ্তানি আয় বৃদ্ধি করা। একইসঙ্গে পোশাক শিল্পের জন্য তিন স্তরের জিএসপি সুবিধা আদায় করার লক্ষ্যে পরিবেশ বান্ধব সংমিশ্রিত সুতা  ও কাপড় উৎপাদন করা।

সরকার আশা করছে, এর মাধ্যমে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে চাকরির সুযোগ সৃষ্টি ও বহুমুখী পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানি করে ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা, ভিশন ২০২১ ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সহায়ক হবে।

প্রকল্পটি ২০২০ সাল নাগাদ বাস্তবায়ন হবে। এর জন্য প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৫১৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। সরকার থেকেই এর পুরো অর্থায়ন করা হবে।

এসআর/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়