• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫

বাজেট আসে বাজেট যায়, জনগণের ভাগ্য কী বদলায়?

সেলিম মালিক
|  ০৫ জুন ২০১৮, ১৬:২৯ | আপডেট : ০৫ জুন ২০১৮, ১৮:০৩
গত বছর অনুষ্ঠিত চাকরি মেলায় অংশ নেয়া শত শত শিক্ষার্থী- ছবি সংগৃহীত
প্রতিবছর বাজেট আসে, বাজেট যায়, কিন্তু সাধারণ মানুষের ভাগ্য কী বদল হয়? বেশির ভাগ নিম্ন আয়ের মানুষ, বোঝেনই না বাজেট কী।

তাই বিশ্লেষকরা বলছেন, সাধারণের প্রত্যাশার কথা বিচেনায় নিয়েই বাজেট প্রণয়ন করা জরুরি। যেখানে নিশ্চিত করা যাবে, সব শ্রেণি মানুষের অংশগ্রহণ।

রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে সামান্য একটি ঘুপচি ঘরে ২০ বছর ধরে একা বাস করছেন আলেয়া বেগম। স্বামী-সন্তানহীন প্রায় ষাটোর্ধ্ব আলেয়ার জীবন চলে অন্যের সাহায্যে। বাজেট বোঝেন না আলেয়া, কখনো পাননি সরকারের কোনো সহায়তাও।

তিনি বলেন বাজেট বুঝি না। তবে নিজে যেন খেয়ে বাঁচতে পারি।

একটি তৈরি পোশাক কারখানার ফিনিশিং বিভাগে ১২ বছর ধরে কাজ করছেন ইউসুফ আলী। বাজেটের কোনো খবর নেই তার কাছেও। তবে, সরকার যেমনই বাজেট দেন না-কেন; আশা কেবল, মজুরিটা যেন ঠিকঠাক পাওয়া যায়।

তিনি বলছেন, সামনে বাজেটে আমাদের একান্ত চাওয়া- যাতে আমাদের ন্যায্য মজুরি ঠিকঠাকমতো পাই। ফ্যাক্টরির উন্নয়নের পাশাপাশি আমরাও যাতে একটু ভালোভাবে বাঁচতে পারি, সরকার সেটারই ব্যবস্থা করুক। 

আশার কিছু নেই, বরং বাজেট নিয়ে কিছুটা শঙ্কা আছে একই কারখানার নুরজাহান বেগমের। বাজেটের পর হুট করে বাজারে নিত্যপণ্যের দাম বাড়বে না-তো?

তিনি বলেন, প্রতি বাজেটের সময় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে যায়। আমাদের বেতন যদি বছরে এক হাজার টাকা বাড়ে, তবে ঘরভাড়া বেড়ে যায় দেড় হাজার টাকা। এক্ষেত্রে আমাদের অনেক সমস্যা হয়। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে কথা হলো এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করে বের হওয়া কয়েকজন শিক্ষার্থীর সাথে। সকলেই চাকরি খুঁজছেন। বাজেটে তাদের চাওয়া নতুন কাজের সুযোগ।

একজন শিক্ষার্থী বলছিলেন, পাস করার পর যদি একটা চাকরিই না পাওয়া যায়, দেশের কর্মসংস্থান সৃষ্টি না হয়, তবে দেশ বেশি দূর এগুবে না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাধারণ মানুষের প্রত্যাশার কথা বিবেচনায় নিয়ে বাজেট প্রণয়ন জরুরি।

বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সানেমের নির্বাহী পরিচালক ড. সেলিম রায়হান বলছিলেন, গত কয়েকবছর ধরে কর্মসংস্থানে আমরা এক ধরনের স্থবিরতা দেখছি, সাধারণ মানুষ তাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রতিফলন বাজেটে দেখছে কিনা- সেটাই দেখার বিষয়।

“তাছাড়া সাধারণ মানুষের জন্য জিনিসপত্রের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখার ব্যাপারে আগামী বাজেটে নজর দিতে হবে।”

এদিকে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. শামসুল আলম জানান, কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি জীনবমান উন্নয়নে আগামী বাজেটে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে।

সর্বপরি বিশেষ কোনো গোষ্ঠীকে সুবিধা দিতে নয়, জাতীয় বাজেট হোক সার্বজনীন এমনটাই চাওয়া সবার।

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়