• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

কানাডার ইমিগ্রেশন মানেই কি প্রতারণা!

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ১৩ মে ২০১৮, ১৭:০৭ | আপডেট : ১৪ মে ২০১৮, ১১:৪৯
পত্রিকার পাতা উলটালেই খালি চোখে পড়ে স্বপ্নের দেশ কানাডায় ইমিগ্রেশন করার হাতছানি।মনে হচ্ছে যে কেউ চাইলেই কানাডায় গিয়ে বসবাস বা কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। আসলেই কি বিষয়টা এই রকম। যাচাই বাছাই না করে এই হাতছানিতে পড়ে অনেকেই হচ্ছে সর্বশান্ত। টাকা ও সময় নষ্ট করে অনেকের ভবিষ্যত আজ অন্ধকার।ঢাকা ও চট্টগ্রামে গড়ে উঠেছে নানা রকম বাহারি নামের ব্যাঙের ছাতার মতো কনসালট্যান্সি ফার্ম। ইমিগ্রেশন ল’ সম্পর্কে বিন্দুমাত্র ধারণা না থাকা লোকজন হয়ে যাচ্ছে  কনসালট্যান্ট ।অথচ সমগ্র পৃথিবীতে ইমিগ্রেশন ল’ নিয়ে কাজ করছে শুধু খ্যাতিমান আইনজীবীরা।

বাংলাদেশে এই ক্ষেত্রে সুনামের সাথে কাজ করছেন আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন  আইন বিশেষজ্ঞ ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আলহাজ্ব শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ।কানাডা ইমিগ্রেশনের খুঁটিনাটি বিষয়াদি জানতে Worldwide Migration Consultants Ltd এর চেয়ারম্যান  শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ বলছেন, মূলত ট্রেড  স্কিল প্রোগ্রাম  ও হাই স্কিল ইমিগ্রেশনের মাধ্যমে বাংলাদেশি দক্ষ ও  যোগ্য লোকজন কানাডায় যাওয়ার সুযোগ পেতে পারে। প্রফেশনাল দক্ষ অভিবাসন  আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রসেস ও ইনকোয়ারির সঠিক জবাব ও অনেকের ক্ষেত্রে আপিলের মাধ্যমে সফলভাবে কাজটি সম্পন্ন করা যায়। সঠিকভাবে ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে ধৈর্য ধারণ করতে হয় বলে তিনি মনে করেন।

পরিবারসহ  হাই স্কিল ইমিগ্রেশন :

সম্ভাবনাময় একটি স্থায়ী উপায় হচ্ছে হাই স্কিল প্রোগ্রামে আবেদন করা।এক্সপ্রেস এন্ট্রি ও পি.এন.পি দুই উপায়ে আবেদন করে স্থায়ীভাবে কানাডায় বসবাস করার সুযোগ পাওয়া যায়।বয়স-৩৫, আই.ই.এল,টি.এস ৭, মাস্টার্স বা অনার্স ডিগ্রী এবং সাথে এক বছরের সংশ্লিষ্ট কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে অনেক কম খরচে এক্সপ্রেস এন্টির মাধ্যমে স্বল্প সময়ে পরিবারসহ কানাডায় স্থায়ী হওয়া যায়।

আই.ই.এল,টি.এস এ স্কোর কম থাকলে এবং বয়স একটু বেশি হলে নির্দিষ্ট কিছু পেশাজীবী পি.এন.পি প্রোগ্রামের মাধ্যমেও আবেদন করতে পারেন। এই বিষয়ে দক্ষ অভিবাসন আইনজীবীর সহায়তার কোনো বিকল্প নাই। ব্রিটিশ কলম্বিয়া, সাসকাচুয়ান, ওন্টারিওসহ  অনেক প্রোভিন্সশনাল প্রোগ্রাম সারা বছর পর্যায়ক্রমে চালু থাকে।

ট্রেড স্কিল  প্রোগ্রাম :

অতি সম্প্রতি কানাডার প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা মতে আগামী তিন বছরে  এই প্রোগ্রামসহ অন্যান্য প্রোগ্রামে প্রায় ১০ লাখ লোক কানাডায় কাজ করার সুযোগ পাবে।তবে যেহেতু কানাডায় ট্রেড স্কিল্ড কাজের সুযোগ বেশি এবং প্রচুর লোকজনের প্রয়োজন হয় সুতরাং শুধু এই ক্যাটাগরিতেই সর্বাধিক সংখ্যক লোকজন অভিবাসনের সুযোগ পাবে। এটি একটি নিশ্চিত প্রোগ্রাম। শুধু শিক্ষাগত যোগ্যতা এস.এস.সি পাশ এবং সংশ্লিষ্ট কাজের ট্রেড স্কিল সার্টিফিকেট, পুলিশ ও মেডিকেল ক্লিয়ারেন্স  থাকতে হবে।তবে আবেদনকারীর বয়স ৩৯ বছরের মধ্যে হতে হবে। মনে রাখতে হবে ট্রেড স্কিল্ড এর মেয়াদকাল অন্ততপক্ষে ০২ বছর হতে হবে অথবা এইচ.এস.সি ভোকেশনাল যেমন: ক) ইকৈকট্রিকাল ওয়ার্কস অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স খ) ইলেকট্রনিক্স কন্ট্রোল অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স গ) মেশিন টুলস্ অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স ঘ) অটোমো্বাইল ঙ) বিল্ডিং কনসট্রাকশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স চ) কম্পিউটার অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স। প্রচুর বেতন, থাকা খাওয়ার সুবিধা, ভালো কাজের পরিবেশ, সামাজিক নিরাপত্তা, স্থায়ী হবার অপার সম্ভাবনা ইত্যাদি বিষয়াদি বিবেচনা করলে এই প্রোগ্রামটি অনেকের জন্যই একটি উপযুক্ত একটি প্রোগ্রাম।

এই বিষয়ে দীর্ঘদিন কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে  লেখক, কলামিস্ট, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব,  আন্তর্জাতিক অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ এবং  বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আলহাজ্ব শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদের। এই বিষয়ে তিনি বলেন, শুধু প্রকৃতপক্ষে যাদের যোগ্যতা আছে শুধু তাদেরই আর দেরি না করে এখনই  আবেদন করা ঠিক হবে এবংঅযোগ্য লোকদের আবেদন করার দরকার নাই । ২০১৮ সালে যেহেতু দক্ষ লোকজনের কোটা অনেক বেশি, সুতরাং আবেদন করতে ইচ্ছুক লোকজনদের সবকিছু জেনে প্রস্তুতি নেবার এটাই উপযুক্ত সময়।

তবে তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, অযোগ্য ব্যক্তিরা অযথাই আবেদন করে দেশের ভাবমুর্তি নষ্ট করবেন না।  আগ্রহী ব্যক্তিরা এই বিষয়ে সরাসরি  আন্তর্জাতিক অভিবাসন বিষয়ক আইনবিশেষজ্ঞ ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এবং ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন কনসালট্যান্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।আপনার পূর্ণাঙ্গ জীবনবৃত্তান্ত পাঠাতে পারেন এই ই-মেইল [email protected] ঠিকানায় । ফোনে প্রাথমিক তথ্যর জন্য কথা বলতে পারেন ০১৯৬৬০৪১৫৫৫, ০১৯০৪০৩৬৮৯৮, ০১৯০৪০৩৬৮৯৯ এই নম্বরে। এছাড়া ভিজিট করুন www.wwbmc.com. ওয়েবসাইটে। ঢাকার উত্তরায় ৭ নম্বরসেক্টরের ৫১ সোনারগাঁও জনপথে অবস্থিত খান টাওয়ারে ওয়ার্ল্ডওয়াইড মাইগ্রেশন লিমিটেডের অফিসেও সরাসরি এসে খোঁজ নিতে পারেন।

বিজ্ঞপ্তি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়