• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫

চীন-মার্কিন বাণিজ্যযুদ্ধ

ট্রাম্পীয় মেদ ঝরছে শেয়ারবাজারে

শাহীনুর রহমান
|  ০৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৩০ | আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৪০
চীন-মার্কিন বাণিজ্যযুদ্ধের আঁচ লেগেছে শেয়ারবাজারে। গেলো কয়েক সপ্তাহে আমেরিকার প্রধান কোম্পানিগুলো বাজার থেকে প্রায় ১ দশমিক ৮ ট্রিলিয়ন পাউন্ড অর্থ খুঁইয়েছে।

দৃশ্যত বাণিজ্যযুদ্ধের শুরুটা হয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হাত ধরেই। মার্চে ট্রাম্প প্রশাসন বিদেশি স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম আমদানিতে শুল্ক আরোপ করার ঘোষণা দেয়। পাল্টা জবাব দিতে দুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি হয় এমন ১২৮টি পণ্যে ২৫ ভাগ পর্যন্ত শুল্ক বসায় চীন।

এ নিয়ে বিশ্বমহলে দিন দিন আতঙ্ক বাড়ছে। চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারির পর থেকে ওয়াল স্ট্রিটে দুই প্রধান বেঞ্চমার্ক ডাউ জোনস ইন্ডাস্ট্রিয়াল এভারেজ সূচক ও এস অ্যান্ড পি ৫০০ সূচক ঝরেছে ১০ শতাংশ।

চীনের হুমকির পর ঝিমিয়ে পড়েছে বিশ্বের বড় বড় কোম্পানিগুলো। ৩ এপ্রিল মার্কিন বাজারে বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের শেয়ার সবচেয়ে খারাপ অবস্থানে পার করেছে। ওইদিন শুধু সকালেই কোম্পানিটির শেয়ারে দরপতন হয় প্রায় ৬ শতাংশ।

এমনিতে সম্প্রতি ফেসবুকের বিরুদ্ধে কেলেঙ্কারির অভিযোগ ও অ্যামাজনের বিরুদ্ধে ট্যাক্স পরিশোধ নিয়ে ট্রাম্পের নেতিবাচক বাণী প্রযুক্তি শিল্পকে পোড়াচ্ছে। তার ওপর বিশ্বের দুই প্রধান অর্থনৈতিক শক্তির মধ্যে যুদ্ধে নয়া আতঙ্ক ছড়াচ্ছে।

২০১৬ সালের নভেম্বর নির্বাচনে জয়ী হন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই জয়ের সুবাতাস লাগে মার্কিন শেয়ারবাজারে। এরপর তা ছড়িয়ে পড়ে এশিয়ার বাজারগুলোতে। ফুলে ফেঁপে উঠতে থাকে বড় বড় কোম্পানি। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ছিল ব্যাংক, প্রযুক্তি কোম্পানি ও ম্যানুফাকচারার কোম্পানি। বিমান নির্মাতা বোয়িং এ সময়ে বাড়তে বাড়তে আকাশ ছুঁয়ে ফেলে।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: রমজানে সাশ্রয়ী দামে পণ্য বিক্রি করবে টিসিবি
--------------------------------------------------------

কিন্তু এখন আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। বলা হচ্ছে- কথিত ‘ট্রাম্পীয় বাজির’ দিন শেষ। গত জানুয়ারিতে যেখানে লন্ডনের বাজারে এফটিএসই ১০০ সূচক সর্বোচ্চ স্থান ছুঁয়েছিল। এখন তা আবার উল্টো দিকে মোড় নিয়েছে। সূচক গত কয়েক মাসে কমেছে প্রায় ১০ শতাংশ। যার মূল্য দিতে হচ্ছে সব মিলে প্রায় ২০০ বিলিয়ন পাউন্ডের।

 

লেইথ খালাপ নামের একজন বাজার বিশ্লেষক বলছেন,  নানা প্রতিশ্রুতি নিয়ে শুরু হলেও ২০১৮ সাল শেয়ারবাজারের জন্য সুখকর নয়।  বিশেষ করে ট্রাম্পীয় নীতি, ফেসবুক কেলেঙ্কারি ও সুদহার বাড়ানোর শঙ্কায় ধরা খেয়েছে আমেরিকা।

এক্ষেত্রে স্বল্প মেয়াদী বিনিয়োগের চেয়ে দীর্ঘ মেয়াদী বিনিয়োগে রিটার্ন পাওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে মনে করেন তিনি।

থিংক মার্কেটের প্রধান বাজার বিশ্লেষক নাসিম আসলাম বলছেন, ট্রাম্পের আরোপ করা শুল্কে বন্দুক ঠেকিয়েছে চীন। এর মাধ্যমে বাণিজ্যযুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে।

গবেষক ক্রিস্টিন ম্যাকড্যানিয়েল সতর্ক করে বলছেন, এই যুদ্ধে কেউ জয়ী হবে না। একদিকে যুক্তরাষ্ট্র হেরে যাবে; আরেক দিকে চীন হেরে যাবে। আর ফাঁদে পড়বে বিশ্ব।

ব্রিটিশ বহুজাতিক বিনিয়োগ ব্যাংক বারক্লেসের নির্বাহী জেস ‍স্ট্যালি যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকে শুল্ক আরোপের এই নয়া যুদ্ধ থেকে সরে যাবার আহ্বান জানান।

আরও পড়ুন :

এসআর/সি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়