• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

ব্যাংকের ঋণ অবলোপনে অনিয়ম ঠেকাতে ১০ সুপারিশ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৮:২২ | আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৯:০৭
ব্যাংকের ঋণ অবলোপনে  মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে ১০ দফা সুপারিশ পাঠিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সুপারিশপত্র মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব বরাবর পাঠানো হয়েছে বলে আজ সোমবার দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য আরটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন।

এবি ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক এবং  বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংরে পূর্ববর্তী ১৫ বছরের অবলোপনকৃত ঋণের তালিকা পর্যালোচনা শেষে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দুর্নীতি দমন কমিশনের সংশ্লিষ্ট অনুসন্ধানকারী টিম ১০টি সুপারিশ করেছে।

সুপারিশগুলো হচ্ছে ব্যাংকিং রেগুলেশন অ্যান্ড পলিসি ডিপার্টমেন্ট (বিআরপিডি) এর নির্দেশ মোতাবেক অবলোপন করা ঋণ গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের সব পরিচালককে খেলাপি হিসেবে ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো (সিআইবি)তে চিহ্নিত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

মামলা ছাড়া কোনো ঋণ অবলোপন না করা; ঋণ অবলোপনের আগে অবশ্যই এর কারণ সুনির্দিষ্ট করা; ব্যবসায়ী ঋণের ফান্ড অন্যত্র হস্তান্তর করেছেন কিনা তা খতিয়ে দেখা।

ঋণ সুপারিশ থেকে অবলোপন পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের কোনো ত্রুটি বা অনিয়ম আছে কিনা তা উল্লেখ করা; বিদ্যমান আইনি কাঠামোর আওতায় ঋণ আদায়ের সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহণ; ঋণ অবলোপনের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের বোর্ডের অনুমোদনের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় ব্যাংক হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নেয়ার একটি বিধান প্রবর্তন করা।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: আমেরিকার চেয়ে গতি বেশি ইউরোপের
--------------------------------------------------------

ঋণ অবলোপনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের আগের বছর পর্যন্ত লভ্যাংশ থেকে শতভাগ প্রোভিশন রাখার নিয়ম থাকলেও কোনো কোনো ব্যাংক চলতি বছরের লভ্যাংশ থেকে প্রোভিশন করে থাকে যা বন্ধ করা;

ঋণ অবলোপনের ক্ষেত্রে প্রচলিত বিধান মোতাবেক মামলা করতে হয়। অর্থ ঋণের মামলায় রায় পাওয়ার পর ব্যাংক এক্সিকিউশন মামলা করে। অর্থাৎ এক্ষেত্রে দুটি মামলা করতে হয়।

কিন্তু অনেক ব্যাংক মূল মামলা করার সাথে সাথেই ঋণ অবলোপন করে ফেলে। এক্ষেত্রে এক্সিকিউশন মামলার পর ঋণ অবলোপনের বিষয়টি বিবেচনা করার বিধান তৈরি করা; প্রচলিত নিয়মে অনেক ক্ষেত্রে মামলা ছাড়াও বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নিয়ে ঋণ অবলোপন করা যায়। এক্ষেত্রে, মামলা ছাড়া কিছুতেই কোনো ঋণ যেন অবলোপন করা না যায়, সে রকম বিধান প্রণয়ন করা।

আরও পড়ুন:

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়