• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

জ্বালানি তেলের দর ২ বছরে সর্বোচ্চ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ৩১ অক্টোবর ২০১৭, ১৩:০১ | আপডেট : ৩১ অক্টোবর ২০১৭, ১৩:০৮
আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দর দুই বছরে সর্বোচ্চে উঠেছে। রয়টার্স, ফিন্যান্সিয়াল টাইমসসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে বলা হচ্ছে, সোমবার বাজারে অপেক্ষাকৃত উন্নত মানের অপরিশোধিত তেলের (ব্রেন্ট ক্রুড) দর ব্যারেল প্রতি ৬০ ডলার অতিক্রম করে। 

আজ লেনদেনের শুরুতেও তেলের বাজার স্থিতিশীল আছে। এদিন সকালের দিকে আগামীতে ডেলিভারি হতে যাওয়া ব্যারেলপ্রতি ব্রেন্ট ক্রুড কেনাবেচা হয় ৬০ দশমিক ৭৮ ডলারে।  

২০১৫ সালের জুলাইয়ের পর এটাই বাজারে সর্বোচ্চ দর। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের শেল সরবরাহ বাড়ার সম্ভাবনার মধ্যেও আন্তর্জাতিক তেল রপ্তানিকারকদের সংগঠন ওপেকের তেল উৎপাদন সীমিত রাখার উদ্যোগের কারণে বাজারে তার প্রভাব পড়েছে। ফলে দাম বেড়েছে।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়, আগামীতে সরবরাহ হতে যাওয়া যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট শ্রেণির অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আজ মঙ্গলবার ৫৪ দশমিক ০৫ ডলারে কেনাবেচা হচ্ছে। গতকাল থেকে এই দর অবশ্য ১০ সেন্ট কম। তবে এটা এখনো গত ফেব্রুয়ারি থেকে সর্বোচ্চে অবস্থানে আছে।  

প্রসঙ্গত, তেলের সরবরাহ ও চাহিদার মধ্যে ভারসাম্য না থাকার কারণে ২০১৪ সালের জুন থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দর  কমতে থাকে।ওই সময় এক ব্যারেল তেল বিক্রি হয় ১১৪ ডলার। কিন্তু দেড় বছরে তা ৩০ ডলারের নিচে নেমে আসে। 

এ প্রেক্ষিতে ওপেক কয়েক দফা বৈঠকে বসলেও তেলের সরবরাহ শিথিল করা সম্ভব হয়নি।

তবে কিছু দেশ এ ব্যাপারে এগিয়ে আসার কারণে চলতি বছরের শুরু থেকে আবারো বাজার ঘুরে দাঁড়াতে থাকে। কিন্তু দর ৫০ ডলারের গণ্ডি পার হচ্ছিল না। 

ব্লুমবার্গ নিউজের খবরে বলা হচ্ছে, ইরাকে তেলের পাইপলাইনে সমস্যা হওয়ার কারণে আপাতত দেশটির উত্তরাঞ্চল থেকে তেল সরবরাহ কিছুটা বন্ধ রয়েছে। ওই পাইপ লাইন দিয়ে দিনে ছয় লাখ ব্যারেল তেল সরবরাহ হয়। 

পাইপলাইনে ত্রুটি থাকার কারণে সেখান থেকে দিনে প্রায় দুই লাখ থেকে দুই লাখ ২০ হাজার ব্যারেল তেলের সরবরাহ আপাতত কমবে।   

এছাড়া সৌদির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তেলের উৎপাদন সীমিত রাখার সময় বাড়ানোর ব্যাপারে ইঙ্গিত দিয়েছেন। এটিও বাজারে নতুন করে প্রণোদনা যুগিয়েছে। 

তবে নতুন করে তেলের দর যে ৬০ ডলার অতিক্রম করেছে তা কতদিন টিকে থাকবে তা ভাববার বিষয়। 

মার্কিন গবেষক রব হাওয়ার্থ বলেন, তেলের বাজার আরো বাড়বে কি না বা ৬০ ডলারের উপরে স্থায়ী হবে কি না তা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। এটা মূলত বাজারে সরবরাহের উপর নির্ভর করছে। সরবরাহ যদি বাড়ে তবে বাজার তার অবস্থান ধরে রাখতে পারবে না। 

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়