• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

বাহারি দেশি পণ্যের সমারোহে এসএমই মেলা

মিথুন চৌধুরী
|  ১৯ মার্চ ২০১৭, ১৭:৩১ | আপডেট : ১৯ মার্চ ২০১৭, ১৭:৪৭
বাহারি দেশি পণ্যের সাজে সেজেছে রাজধানীর এসএমই মেলা। আর ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের পদচারণায় জমে উঠেছে প্রাঙ্গণ। বাঙালির ঐতিহ্যের বিভিন্ন নকশাঁ করা পোশাক, পাটজাত পণ্য, খাবার, জুতা, চামড়া পণ্য, প্লাস্টিক, হস্তশিল্পসহ বিভিন্ন পণ্য মেলায় প্রদর্শিত ও বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৫ দিনব্যাপী চলা এ মেলায় বেশিরভাগ পণ্যে বিভিন্ন অঙ্কের মূল্যছাড় দেয়া হচ্ছে। গেলো মঙ্গলবার মেলার উদ্বোধন করেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

সারাদেশের ২শ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ২১৬টি স্টলে তাদের উৎপাদিত  বিভিন্ন পণ্য বিক্রির পাশাপাশি প্রচার ও প্রসারের জন্য মেলায় প্রদর্শন করা হচ্ছে। মেলায় দেশে উৎপাদিত পাটজাত পণ্য, খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, চামড়াজাত সামগ্রী, ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী, আইটি পণ্য, প্লাস্টিক, সিনথেটিক, হস্তশিল্প, ডিজাইন ও ফ্যাশনওয়্যার, পাটজাত পণ্য, খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, চামড়াজাত সামগ্রী, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং পণ্য, ডিজাইন ও ফ্যাশনওয়্যারে ভরে গেছে।

আজ রোববার মেলা ঘুরে দেখা যায়, দর্শনার্থীদের সমাগম ও  বেচাকেনায় বেশ জমে উঠেছে।

ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতের (এসএমই) শিল্প উদ্যোক্তাদের পণ্যের প্রচার ও প্রসার বাড়াতে ৫ দিনব্যাপী এ মেলার আয়োজন করেছে এসএমই ফাউন্ডেশন। এবার মেলায় দর্শনার্থীদের আকর্ষণে নতুন পণ্য নিয়ে এসেছেন উদ্যোক্তারা। মেলায় দর্শনার্থীদের ভালো সাড়া পাওয়ায় বেচাকেনা বাড়ার আশা করছেন উদ্যোক্তারা।

বিভিন্ন স্টলে দেখা যায় নারী উদ্যোক্তাদের তৈরি নিপুণ কারুকাজের সব পণ্য। মেলার মাধ্যমে এ পণ্য সরাসরি বিক্রি করছেন তারা।

রাজশাহী থেকে মেলায় অংশ নিয়েছেন নারী উদ্যোক্তা উরসি মাহফিলা। তিনি বলেন, নানান নকশাঁয় বিভিন্ন ধরনের পোশাক তৈরি করে বাজারজাত করছি আমরা। ক্রেতা-দর্শনার্থীদেরও বেশ ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। প্রথম দিকের চেয়ে গেলো দুই দিনে দর্শনার্থী-ক্রেতার সংখ্যা তুলনামূলক বেশি। বেচা-বিক্রিও বেশ জমে উঠেছে। নিজের পণ্য পরিচিতি বাড়াতে এবার মেলায় অংশ নিয়েছেন বলে জানান তিনি।

মেলায় দর্শনার্থীদের উপস্থিতির পাশাপাশি অনেককেই কেনাকাটা করতে দেখা গেছে। বিভিন্ন নকশার ফতুয়া, কামিজ, পাঞ্জাবি, বাচ্চাদের পোশাক, শাড়ি, মেয়েদের ভেনিটি ব্যাগ, পার্সসহ বিভিন্ন পণ্যের বেচাকেনা বেশি হচ্ছে।

মেয়েকে নিয়ে মেলায় এসেছেন ধানমন্ডি থেকে আসা সুস্মিতা চৌধুরী। তিনি বলেন, মেলায় বিভিন্ন ডিজাইনের হাতের কাজ করা পোশাক পাওয়া যাচ্ছে।  বেশ কয়েকটি স্টল ঘুরে পছন্দের কয়েকটি পোশাক কেনা হয়েছে।

কলাবাগান থেকে আসা প্রিয়াংকা মৈত্রেয় বলেন, মেলায় বিভিন্ন ধরনের পাটের ব্যাগ, শপিং ব্যাগ, সেমিনার ব্যাগসহ বিভিন্ন সাইন ও কালারের ভেনিটি ব্যাগ দেখেছি। বেশিরভাগ ব্যাগ পছন্দ হয়েছে। কোনটা কিনবো তাই দিধায় ভুগছি।

মেলায় খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ফুলের মধু, আচার, ঘি, বিলুপ্ত প্রায় হরেক রকম ধানের চাল, খই, মুড়ি প্রভৃতি।

এদিকে এবার এসএমই মেলার মূল আকর্ষণই হচ্ছে কুটিরশিল্প ও অর্গানিক দ্রব্য।

মেলায় অর্গানিক চাল বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৫০ টাকা থেকে ১৫০ টাকায়। ঘি ৬শ’ থেকে সাড়ে ৮শ’ টাকায়, মধু ৮শ’ থেকে ১ হাজার ২শ’ টাকায়। শার্ট ৫শ’ থেকে দেড় হাজার টাকা, কামিজ ৫শ’ থেকে ৩ হাজার টাকায়, শো-পিস ৫০ থেকে ৩ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ব্যাগ ১শ’ থেকে ২ হাজার টাকা, জুতা ৫শ’ থেকে ৩ হাজার টাকা, সেন্ডেল ৩শ’ থেকে ২ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া মেলায় পাটের ফেব্রিক্স, থান কাপড়, প্যাকেজিংয়ের মেশিন, ভোল্টেজ স্টেবুলাইজারসহ আনুষঙ্গিক পণ্যও পাওয়া যাচ্ছে।

ক্রেতা-বিক্রেতা ‘মিটিং বুথ’র ব্যবস্থা রাখা হয়েছে এবারের মেলায়। এ ছাড়া রক্তদান কর্মসূচি, মিডিয়া সেন্টার ও তথ্য কেন্দ্রের স্টলও রয়েছে।

মেলার আয়োজকেরা জানান, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিক্রয় এবং স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাজার সম্প্রসারণ, এসএমই উদ্যোক্তাদের পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়ন, যোগাযোগ ও সেতুবন্ধন তৈরিতে সহায়তা, এসএমই উদ্যোক্তা ও ভোক্তাদের মাঝে পারস্পরিক সংযোগ স্থাপন এবং পণ্য উৎপাদন ও সেবা সৃষ্টির ক্ষেত্রে ভোক্তাসহ বিভিন্ন মহলের সৃজনশীল মতামত ও পরামর্শ গ্রহণ করতেই এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

এবারের মেলায় প্রথমবারের মতো ব্যবসা বহুমুখীকরণ নারী উদ্যোক্তাদের প্রস্তুতি, নতুন ভ্যাট আইনে এসএমইবান্ধব ব্যবস্থা এবং নন-ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস টু এসএমই কাস্টমার ফর সাসটেইনেবল এসএমই ফাইন্যান্সিং শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে।

মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। দর্শনার্থীরা বিনামূল্যে মেলায় প্রবেশ করতে পারবেন। আসছে সোমবার মেলার পর্দা নামবে।

এমসি/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়