• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫

কালীগঞ্জে বেহাল সড়ক, দুর্ভোগে হাজারো মানুষ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
|  ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:০৮ | আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:৪৮
রাস্তার বিভিন্ন স্থানে পিচ ও খোয়া উঠে গেছে। ছোট-বড় অসংখ্য খানাখন্দ। সামান্য বৃষ্টিতেই জমছে পানি। এর ওপর দিয়ে হেলেদুলে ঝুঁকি নিয়ে চলছে গাড়ি। এ অবস্থা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কের। সড়কের এমন বেহাল অবস্থায় প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। দুর্ভোগ পোহাচ্ছে চলাচলকারী হাজারো মানুষ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, কালীগঞ্জ উপজেলার বাসস্ট্যান্ডে এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য অটোরিকশা, বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানসহ নানা ধরনের যানবাহন চলাচল করে। এটি ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া জেলার যাতায়াতের প্রধান সড়ক। সড়কটি দিয়ে খুলনা-যশোর রুটে হাজারো যানবাহন প্রতিদিন যাতায়াত করে।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখা গেছে, সামান্য বৃষ্টিতে দুই কিলোমিটার সড়কের অধিকাংশ স্থানে পিচ ও খোয়া উঠে ছোট-বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। যানবাহন চলছে ঝুঁকি নিয়ে। কালীগঞ্জ টিএন্ডটি অফিসের সামনের সড়কটি উভয় পাশে পিচ ও খোয়া উঠে দেবে গেছে।

কালীগঞ্জ দুলালমুন্দিয়া বাজার থেকে নিমতলা বাজার পর্যন্ত খুবই খারাপ অবস্থা। কালীগঞ্জ মেইন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অবস্থা সবচেয়ে বেশি খারাপ। এখানে বড় বড় খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই কাদাপানিতে এ অংশ একাকার হয়ে যায়। সড়কে তৈরি হয়েছে বড় বড় গর্ত।

ঝিনাইদহে চাকরি করেন শিমুল বিশ্বাস। তিনি বলেন, এ সড়ক দিয়ে ঝিনাইদহে খুব সংক্ষিপ্ত রাস্তা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মোটরসাইকেলে এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করি। কিন্তু কখন কি হয় জানি না।

খড়িখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক স্বপন বাবু এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বিদ্যালয়ে যাতায়াত করেন। তিনি বলেন, চাকরিজীবী ও ব্যবসায়ীসহ কয়েক হাজার মানুষ প্রতিদিন চলাচল করেন। সড়কটির বেহাল অবস্থার কারণে মানুষের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে।

কালীগঞ্জ ফয়লা গ্রামের অটোরিকশা চালক মহিদুল ইসলাম বলেন, ছোট যানবাহন প্রায়ই উল্টে দুর্ঘটনা ঘটছে। পাঁচ মিনিটের পথ যেতে সময় লাগছে আধাঘণ্টা।

কাভার্ডভ্যান চালক বেলাল আহমেদ বলেন, গত ১০ বছর যাবত এ এলাকার বাজারগুলোতে পণ্য দিতে আসি। সড়কের অধিকাংশ জায়গায় ছোট-বড় গর্ত। গাড়ি চলে হেলেদুলে। খানাখন্দে চাকা পড়লে গাড়ি তোলা অসম্ভব হয়ে পড়ে। এই অবস্থায় গাড়ি চালাতে খুব কষ্ট হয়।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুবর্ণা রানী সাহা আরটিভি অনলাইনকে বলেন,  বিষয়টি নিয়ে বার বার ওপর মহলে বলা হয়েছে সড়কটি অতি দ্রুত সংস্কার করা হবে। খুব দ্রুতই ভুক্তভোগীদের ভোগান্তির অবসান ঘটবে। 

আরও পড়ুন : 

জেবি /জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়