• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

গাইবান্ধায় বাস-ট্রাক্টর সংঘর্ষে নিহত ৫

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
|  ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৪০ | আপডেট : ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:৫০
গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় টাক্টর ও বাস মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুসহ ৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও আহত হয়েছেন ১০ জন।
শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ১২টার দিকে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন গারামারা রাইস মিল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল হামিদ বলেন, দরবার নামে সৌদিয়া সিটিং সার্ভিসের একটি বাস গাইবান্ধা থেকে ঢাকা যাচ্ছিলো। পলাশবাড়ী উপজেলার মহদিপুর ইউনিয়নের গারামারা রাইস মিলের সামনে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা হাবিবা হাকিম ফুড নামের একটি ট্রাক্টরের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। 

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান আরটিভি অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে দরবার সাউদিয়া পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী নৈশকোচ গাইবান্ধা থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়। রাত সোয়া ১২টার দিকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির সময় বাসটি রাইচ মিল এলাকায় অপর দিক থেকে আসা একটি টাক্টরের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ  হয়।
-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : সড়ক দুর্ঘটনার দায় নিয়ে বুলগেরিয়ার তিন মন্ত্রীর পদত্যাগ
-------------------------------------------------------

এ সময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি সড়কের পাশে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়। এক পর্যায়ে খুঁটি হেলে গেলে বাসটি উল্টে সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে বিদ্যুতের তার বাসের উপর পড়ে বাসটি বিদ্যুতায়িত হয়। স্থানীয়রা তাৎক্ষনিক বিদ্যুৎ বিভাগে খবর দিলে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজন পুরুষ ও দুইজন মহিলা মারা যান এবং হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও এক শিশু মারা যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হতাহতদের উদ্ধার করে।

মোস্তাফিজার রহমান আরও বলেন, দুর্ঘটনার পর বাস ও ট্রাক্টরের চালক ও সহকারি পালিয়ে গেছে। মৃতদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর হচ্ছে। দুর্ঘটনায় কবলিত কোচ ও ট্রাক্টরটি উদ্ধার করা হয়েছে।

গুরুতর আহত চার জনকে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তারা হলো সাদুল্যাপুর উপজেলার দক্ষিণ নলডাঙ্গা গ্রামের শাহজাহান (২৬), রুমা আক্তার(১৮), আখি খাতুন(২৩), মুন্নি আক্তার(১৫) ও কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারীর রুমা আক্তার(১৮)।

আরও পড়ুন :

এমসি/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়