• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

রাস্তায় ভোগান্তির পরেও সরগরম সিলেটের পর্যটন স্পটগুলো

সিলেট প্রতিনিধি
|  ২৭ আগস্ট ২০১৮, ১৯:২৭ | আপডেট : ২৭ আগস্ট ২০১৮, ১৯:৫৩
ঈদ উদযাপনে পর্যটকদের উপস্থিতিতে সরগরম সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিলেটের পর্যটন স্পটগুলোগুলো। তবে রাস্তার ভোগান্তিতে খানিকটা বিরক্ত ভ্রমণ পিপাসুরা।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিলেটে রয়েছে অসংখ্য পর্যটন স্পট। জাফলং, শ্রীপুর, বিছানাকান্দি, রাতারগুল, ভোলাগঞ্জ ও লোভাছড়াসহ সিলেটের স্পটগুলো প্রতিনিয়ত আকৃষ্ট করছে ভ্রমণ পিপাসুদের। এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকি আর চা বাগানের মনোরম দৃশ্য তো রয়েছেই। এবার ঈদেও পর্যটকদের আনাগোনা বেড়েছে এসব পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে।

সুমাইয়া নামের এক পর্যটক জানান, জাফলং অনেক সুন্দর। তাই এখানে ঘুরতে এসেছি। মনে হচ্ছে এখানে যেন বারবার আসি।

ঋতু নামের অপর এক শিশু পর্যটক জানায়, জাফলংয়ে এসেছি বেড়াতে। অনেক সুন্দর লাগছে।

রহিমা নামের এক পর্যটক জানান, বেশ ভালোই লাগলো জাফলং এসে। এখানে জিনিসপত্র সস্তায় কেনা যাচ্ছে।  
-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : হজে গিয়ে ৮ দিন ধরে নিখোঁজ মোংলার আজিজার রহমান
-------------------------------------------------------

সিলেট শহর থেকে ভোলাগঞ্জ পর্যন্ত ৩৩ কিলোমিটার সড়কের বড় অংশ চলাচলের অনুপযোগী  বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

ভোলাগঞ্জে ঘুরতে আসা নীরা নামের এক নারী জানান, রাস্তার অনেক অসুবিধা। আসার পথে অনেক কষ্ট হইছে। রাস্তা অনেক ভাঙাচুরা।

এদিকে জাফলংয়ের স্থানীয় এক ব্যক্তি জানান, জৈন্তাপুর থেকে জাফলং পর্যন্ত রাস্তার উন্নতি করা হলে এখানে পর্যটকের সমাগম বাড়বে।

রাস্তার জন্য ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রেও কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা।

রহিম নামের এক মৌসুমী ব্যবসায়ী জানান, পর্যটক না আসলে কিভাবে বেচাকেনা হবে? আর পর্যটক আসার একটাই মূল সেটা হলো রাস্তা। রাস্তাই ঠিক নাই পর্যটক কিভাবে আসবে।

রাস্তাঘাট সংস্কারসহ প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত হলে সিলেটে পর্যটকদের উপস্থিতি বাড়ার পাশাপাশি ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিধি বাড়বে বলেও মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

আরও পড়ুন : 

 

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়