শেরপুরে নদীতে ডুবে দুই বন্ধুর মৃত্যু

প্রকাশ | ২৪ আগস্ট ২০১৮, ১০:৪৯ | আপডেট: ২৪ আগস্ট ২০১৮, ১০:৫৯

শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরের নকলা উপজেলায় ঈদ আনন্দ করার সময় ভোগাই নদীর পানিতে ডুবে ষষ্ঠ শ্রেণিপড়ুয়া দুই বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার উরফা ইউনিয়নের তারাকান্দার ভোগাই নদীর পিছলাকুড়ি রাবারড্যাম এলাকায় বৃহস্পতিবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো-নকলা পৌর এলাকার গড়েরগাঁও মহল্লার গেন্দা মিয়ার ছেলে উমর ফারুক (১২) এবং আক্তার মিয়ার ছেলে শান্ত মিয়া (১২)। ফারুক নকলা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং শান্ত মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বিদ্যা নিকেতনের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান আব্দুল হালিম দুই স্কুলছাত্রের নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বিকেলে ভোগাই নদীর পানিতে নিখোঁজ হওয়ার প্রায় আড়াই ঘণ্টার পর ভাটির দিক থেকে ওই দুই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত
-------------------------------------------------------

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটার দিকে বেশ কয়েকজন বন্ধু মিলে ঈদ আনন্দ উপভোগ করতে নকলা পিচলাকুড়ি এলাকার ভোগাই নদীর ওপর নির্মিত তারাকান্দা রাবারড্যাম দেখতে যায় ফারুক ও শান্ত। তারা ব্রিজের পূর্বপাশে নদীতে ভেসে ওঠা ছোট একটি চরের মতো জায়গায় আনন্দ করতে থাকে। একপর্যায়ে হঠাৎ পা পিছলে উমর ফারুক, শান্ত মিয়া ও তাদের আরেক বন্ধু পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয়।

পরে সঙ্গে থাকা বন্ধুদের চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাৎক্ষণিক এক শিক্ষার্থীকে জীবিত উদ্ধার করেন। খোঁজাখুঁজির প্রায় দুই ঘণ্টা পর শান্তকে এবং প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর ফারুককে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয়রা। এসময় নদীর দুই তীরে শত শত লোকজন জড়ো হয়।

নকলা পৌরসভার কাউন্সিলর ফিরোজ মিয়া জানান, মেধাবী দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে এলাকায় চলছে শোকের মাতম। এমন কচি তাজা দুটি প্রাণের অকাল মৃত্যুতে পরিবার-পরিজনসহ এলাকাবাসীর মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

আরও পড়ুন  : 

জেবি