• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

বাঘাইছড়িতে জেএসএস কর্মীকে গুলি করে হত্যা

রাঙামাটি প্রতিনিধি
|  ২৩ আগস্ট ২০১৮, ০৯:১২ | আপডেট : ২৩ আগস্ট ২০১৮, ১০:১৬
রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) এক কর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

বুধবার ঈদ-উল-আজহার দিন শেষে রাত ১০টার দিকে উপজেলার বঙ্গলতলি ইউনিয়নের নিজ বাসায় একদল অস্ত্রধারী তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়।

নিহতের নাম মিশন চাকমা (৩২)। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) সোর্স (সংবাদ সরবরাহকারী) হিসেবে কাজ করতেন।

বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, প্রাথমিকভাবে পাওয়া তথ্য অনুসারে নিহত মিশন চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) সোর্স (সংবাদ সরবরাহকারী) হিসেবে কাজ করতেন।

এ ব্যাপারে নিহতের পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুসারেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাঘাইছড়ি থানার শীর্ষ এই কর্মকর্তা।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : লাকসামে বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু
-------------------------------------------------------

বাঘাইছড়ি উপজেলার জেএসএস (এমএন লারমা) দলের সভাপতি সুরেশ কান্তি চাকমা বলেন, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) উদয় বিকাশ চাকমা ওরফে চিক্কিধন চাকমার নেতৃত্বে এই হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে। আমরা যতটুকু খবর পেয়েছি প্রায় ঘণ্টাব্যাপী লাঠি দিয়ে আঘাত করার পর তার মৃত্যু নিশ্চিত করতে গুলি করা হয়।

এ বিষয়ে ইউপিডিএফের মুখপাত্র নিরন চাকমা বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে আমাদের কোনও সম্পৃক্ততা নেই। এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিরোধ হতে পারে।

ধারণা করা হচ্ছে, গত সপ্তাহে পাহাড়ের আরেক জেলা খাগড়াছড়ি শহরের স্বনির্ভর বাজার এলাকায় সশস্ত্র হামলায় ইউপিডিএফের সাত নেতাকর্মী সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ী হত্যার ঘটনার প্রতিশোধ হিসেবেই এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। কারণ ওই হত্যাকাণ্ডের পর ঘটনার জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করে আসছিল ইউপিডিএফ।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়