• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫

বিয়ের ৩ দিন পর গৃহবধূর কলসিবাঁধা মরদেহ উদ্ধার

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ০৭ আগস্ট ২০১৮, ১২:৩৬ | আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০১৮, ১২:৪২
ঢাকার দোহারে বিয়ের তিন দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির পুকুর থেকে নববধূর কলসিবাঁধা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

উপজেলার উত্তর জয়পাড়ার মিয়াপাড়া এলাকার পুকুর থেকে সোমবার সন্ধ্যায় মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত শিখা আক্তার (১৮) ওই এলাকার রুহুল আমীনের স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে রহুল পলাতক রয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দোহার থানার ওসি শেখ সিরাজুল ইসলাম।

আটককৃতরা হলেন রুহুলের চাচা মো. খোকন (৫০), মা আসমা বেগম (৪৫), বোন ফারিয়া আক্তার (১৮) এবং ভাবি মোহনা আক্তার (২০)।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি সিরাজুল বলেন, দোহারঘাটা এলাকার কুয়েত প্রবাসী মো. সিরাজের মেয়ে শিখার সঙ্গে গত শুক্রবার রহুলের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

রোববার রাত থেকে শিখার কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনও হদিস মেলেনি।

একপর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় শ্বশুরবাড়ির পুকুরে কচুরিপানার নিচে গলায় কলসিবাঁধা অবস্থায় শিখার মরদেহ তার বাবার বাড়ির লোকজন খুঁজে পায়।

পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায় বলে জানান ওসি।

এদিকে মরদেহ পাওয়ার ঘটনায় শিখার আত্মীয়স্বজন ও স্থানীয়রা রুহুল আমীনের বাড়ি ভাংচুর করেন। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়া শিখা হত্যার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে থানার সামনে বিক্ষোভ করে শিখার গ্রামের লোকজন।

ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান ওসি সিরাজুল।

আরও পড়ুন :

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়