• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

গাইবান্ধায় তিনদিন আটকে রেখে প্রেমিকাকে ধর্ষণ, প্রেমিক গ্রেপ্তার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
|  ০৩ আগস্ট ২০১৮, ১৮:৪৮ | আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০১৮, ১৯:১৮

গাইবান্ধায় ফাঁদে ফেলে তিনদিন আটকে রেখে প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে শামিম মিয়া (২৬) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার গাইবান্ধা সদর থানায় এই ঘটনায় অভিযোগ করার পর তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শামিম পলাশবাড়ী উপজেলার কুমেদপুর গ্রামের লুৎফর মিয়ার ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ জুলাই প্রেমিকাকে তুলশীঘাট গ্রামীণ ব্যাংক অফিসের সামনে ডেকে পাঠান শামিম। বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ফাঁসিতলার মিন্টু মিয়া নামের এক আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে মেয়েটির মোবাইল ফোন ভেঙে ফেলেন তিনি। এখানে তিনদিন আটকে রেখে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ করেন শামিম।

গত ৩১ জুলাই বিকেলে কিশোরীকে গাইবান্ধা শহরের পৌরপার্কে নিয়ে আসেন শামিম। পার্কে কিশোরীকে বসিয়ে রেখে বাদাম কিনে আনার কথা বলে সটকে পড়েন তিনি। পরে রাত ১০টা পর্যন্ত শামিম ফিরে না আসায় স্থানীয় লোকজন প্রতারিত কিশোরীকে গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোর্ড বাজার এলাকার নানার বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

এই ঘটনায় কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে শামিম মিয়াসহ তিনজনকে আসামি করে গাইবান্ধা সদর থানায় অভিযোগ করেন। পুলিশ পলাশবাড়ী উপজেলার কুমেদপুর গ্রাম থেকে শামিমকে গ্রেপ্তার করে।

শুক্রবার দুপুরে অভিযোগটি এজাহার হিসেবে রেকর্ড করে কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে বিকেলে আদালতে বিচারকের কাছে হাজির করে ২২ ধারায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

এই বিষয়ে গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) খান মো. শাহরিয়ার বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি ধর্ষণের কথা প্রাথমিকভাবে  স্বীকার করেছেন।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর ডাক্তারি পরীক্ষা এবং ২২ ধারায় আদালতে বিচারকের কাছে জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

কে/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়