• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

যশোরের রূপদিয়া রেলস্টেশনে গরু-ছাগলের হাট

যশোর প্রতিনিধি
|  ০৩ আগস্ট ২০১৮, ১৮:০৮ | আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০১৮, ১৮:১৪

যশোরের রূপদিয়া রেলস্টেশনটি দখল করে সেখানে গরু-ছাগলের হাট বসিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

শুক্রবার রেলস্টেশনে সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্টেশনটির প্ল্যাটফরম দখল করে গরুর হাট বসিয়েছেন ১৪নং নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের ৭নং ইউপি সদস্য ও একই ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিম বিশ্বাস।

তার সঙ্গে আছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম বিশ্বাসসহ স্থানীয় আরও অনেক নেতা। ভয়ে প্রভাবশালীদের বিষয়ে কথা বলতে সাহস পাচ্ছেন না রেলস্টেশনের কোনও কর্মকর্তা।

রেলস্টেশন সূত্রে জানা গেছে, এই রেলস্টেশন দিয়ে প্রতিদিন অন্তত ২৪টি ট্রেন আপ-ডাউন করে থাকে। এই স্টেশন দিয়ে খুলনা-ঢাকা, খুলনা-কলকাতা, খুলনা-সৈয়দপুর, যশোর-বেনাপোল রুটের ট্রেন যাতায়াত করে।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : নারায়ণগঞ্জে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শামীম ওসমানের সংহতি
--------------------------------------------------------

হাটে গরু বিক্রি করতে আসা কোরবান আলী নামের এক গরু ব্যবসায়ী বলেন, গরুর হাটটি আগে মাদরাসার মাঠে ছিল। এখন মাদরাসার মাঠ থেকে তুলে নিয়ে এসে এখানে বসানো হয়েছে।

রেলস্টেশনের প্ল্যাটফরম দখল করে হাট বসানোর বিষয়টি জানেন না উল্লেখ করে যশোর রেলস্টেশনের স্টেশন মাস্টার পুষ্পল চক্রবর্তী বলেন, রেলস্টেশনটিতে আগে সাইদুজ্জামান নামের একজন স্টেশন মাস্টার ছিলেন। নতুন করে কাউকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে কিনা জানি না।

এই ব্যাপারে জানতে আজিম বিশ্বাসের মোবাইল ফোনে কয়েক বার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এই বিষয়ে হাটের পার্টনার এবং ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেন বলেন, খুলনা বিভাগীয় রেল কোম্পানির প্রধানের কাছ থেকে আজিম মেম্বার অনুমতি নিয়ে এসেছে। রেললাইন থেকে ৫০ গজ দূরে আমরা হাট বসিয়েছি। এতে মানুষের কোনও সমস্যা হচ্ছে না। 

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম বিশ্বাস জানান- রূপদিয়া স্টেশনটি বন্ধ আছে। এখানে কোনও ট্রেন থামে না। তবে কথা বলার একপর্যায়ে তিনি একটা ট্রেন থামার কথা স্বীকার করেন।

রেলস্টেশনের প্ল্যাটফরমে গরু-ছাগলের হাট বসানো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই বিষয়ে আপনি স্টেশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মোদাচ্ছের আলী বলেন, এই হাটের সঙ্গে ইউনিয়ন পরিষদের কোনও সম্পৃক্ততা নেই। এর সঙ্গে জড়িত আছে আমার পরিষদের একজন ইউপি সদস্য। স্টেশনটি দখল করে গরু-ছাগলের হাট বসানো হয়েছে।

কে/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়