নিজের ভোটই দেননি বুলবুল

প্রকাশ | ৩০ জুলাই ২০১৮, ১৭:৪৩ | আপডেট: ৩০ জুলাই ২০১৮, ১৯:১৫

রাজশাহী প্রতিনিধি

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে একটি কেন্দ্রে ভোটারের তুলনায় বেশি ভোট পড়েছে অভিযোগ করে ভোট দেননি বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

একইসঙ্গে জাল ভোট দেয়ার প্রতিবাদে নগরীর ইসলামিয়া কলেজ কেন্দ্রের মাঠে অবস্থান নেন তিনি। সেখানে বিকেল ৪টা পর্যন্ত অবস্থান করেন বুলবুল।

এর আগে বুলবুলের অভিযোগের ভিত্তিতে মেয়র প্রার্থীদের ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যাওয়ায় দুপুর সোয়া ১২টার দিকে নগরীর ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের ১৩৭ নম্বর কেন্দ্র বিনোদপুরের ইসলামিয়া কলেজে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।

জানা গেছে, নগরীর স্যাটেলাইট টাউন হাইস্কুল কেন্দ্রে ভোট দেয়ার কথা ছিল বুলবুলের। কিন্তু ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের ১৩৭ নম্বর কেন্দ্রে ভোটারের তুলনায় বেশি ভোট পড়ায় নিজের কেন্দ্রে ভোট দিতে যাননি বুলবুল।

নির্বাচনী কর্মকর্তাদের কাছে ব্যালট পেপারের হিসাব দাবি করে তিনি বলেন, বিকেল চারটায় ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত তিনি ওই মাঠে অবস্থান করবেন। শেষ পর্যন্ত ওই মাঠেই ছিলেন তিনি। বিকেল চারটায় ভোটের সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় আর ভোট দেয়া হয়নি বুলবুলের।

এর আগে সোমবার সকাল আটটায় সিটির ১৩৮টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরুর পর বিভিন্ন কেন্দ্রে কেন্দ্রে ঘুরতে থাকেন ধানের শীষের প্রার্থী বুলবুল। নগরীর স্যাটেলাইট টাউন হাইস্কুল কেন্দ্রে ভোট দেয়ার কথা থাকলেও দেননি তিনি।

৩০ নম্বর ওয়ার্ডের ইসলামিয়া কলেজ কেন্দ্রে মেয়রের ব্যালট পেপার দেয়া হচ্ছে না- এমন খবর পেয়ে দুপুরের আগে ওই কেন্দ্রে ছুটে যান বুলবুল। কেন্দ্রের ভেতরে ঘুরে এসে কলেজের মাঠে ঘাসের উপর বসে পড়েন এই বিএনপি নেতা।

এসময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ওই কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যার চেয়েও বেশি ভোট বাক্সে পড়ে গেছে। ব্যালট পেপার ফুরিয়ে যাওয়ায় অন্য কেন্দ্র থেকে ব্যালট এনে ভোটের কার্যক্রম চলাচ্ছে। আমি ১১টা সোয়া ১১টার দিকে এ কেন্দ্রে আসার পরে প্রিসাইডিং কর্মকর্তার রুমে আমার পোলিং এজেন্টদের নিয়ে ঢুকি, যাদের বের করে দেয়া হয়েছিল। ওই রুমে যাওয়ার পরে বলা হয়, আমাদের এখানে ৩২৫টি করে ভোট ছিল, সব দেয়া হয়ে গেছে। দুইটা বুথে মনে হয় ১০০ ব্যালট রয়েছে। ২২৪৮টি ভোটের মধ্যে মেয়রের বাদ বাকি ভোট দেয়া হয়ে গেছে।

নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে ব্যালটের হিসাব দাবি করে বুলবুল বলেন, কী পরিমাণ ভোটার রয়েছে, কী পরিমাণ ভোট পড়েছে এসব তথ্য না দেয়া পর্যন্ত আমি এখান থেকে উঠব না।

নিজের ভোট দেননি কেন এ প্রশ্নে বুলবুল বলেন, বিপন্ন গণতন্ত্রে আমার পোলিং এজেন্টরাও ভোট দিতে পারেনি; বের করে দিয়েছে। সেখানে আমার ভোট দিয়ে কী লাভ?

বুলবুল বলেন, আমি এখানে অবস্থান ধর্মঘট করেছি। চারটা পর্যন্ত জাতির কাছে, প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের বিবেকের কাছে আমার প্রশ্ন, তাদের সন্তান ও আত্মীয়-স্বজনের কাছে আমার প্রশ্ন, জাতিকে আজ কোন দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে?

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : তিন সিটিতে ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা
--------------------------------------------------------

বুলবুলের অভিযোগের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার আবদুল্লাহ আল শাফি বলেন, উনি দুপুর একটার দিকে এখানে এসেছিলেন। আমাদের সঙ্গে কথা বলছেন, আমরাও বলেছি। এখান থেকে বের হয়ে তিনি মাঠে অবস্থান নেন।

জেবি/পি