• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

সহপাঠীর প্রতিহিংসার শিকারে বিপাকে মেধাবী ছাত্রী তামান্না

নড়াইল প্রতিনিধি
|  ২২ জুলাই ২০১৮, ১১:২০ | আপডেট : ২২ জুলাই ২০১৮, ১১:৫৬
নড়াইলে এ বছর মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডর অধীনে অনুষ্ঠিত আলিম পরীক্ষায় অংশ নেয়া রাফিয়া তাসমিন তামান্না নামে এক পরীক্ষার্থী তার সহপাঠী প্রতিহিংসার শিকার হয়ে বিপাকে পড়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

৭ মে উচ্চতর গণিত প্রথমপত্র পরীক্ষা চলাকালে শাহাবাদ মাজিদিয়া কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে ওই ঘটনাটি ঘটে। 

জানা যায়, নড়াইলে এ বছর মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডর অধীনে অনুষ্ঠিত আলিম পরীক্ষায় বিজ্ঞান শাখায় অংশ নেয় শাহাবাদ মাজিদিয়া কামিল মাদরাসার মেধাবী ছাত্রী রাফিয়া তাসনিম তামান্না (রোল- ২০৫১৪০ রেজিঃ নং-১২১৮৭৯২৩০২)। পরীক্ষা চলাকালে ৭ মে উচ্চতর গণিত প্রথম পত্রের পরীক্ষায় অংশ নিয়ে তামান্না নির্ধারিত সময়ের ১৫-২০ মিনিট আগে উত্তরপত্র সম্পন্ন করে হল পরিদর্শকের নিকট সেটি (উত্তরপত্রটি) জমা দেন। কিন্তু হল পরিদর্শক অন্য সকল পরীক্ষার্থীর উত্তরপত্র জমা নেয়ার কাজে ব্যস্ত থাকার সুযোগে একই শাখার পরীক্ষার্থী ইখলাছুর রহমান (রোল-২০৫১৪৬, রেজিঃ নং-১৩১৮৮২০৬৯৫) হল পরিদর্শকের নিকট তার নিজের রোল নম্বর লিখতে ভুল হয়েছে বলে কৌশলে তামান্নার উত্তরপত্র নিয়ে সেটির ৫টি অংক কেটে দিয়ে তামান্নার উত্তরপত্রটি টেবিলে ফেলে রেখে দৌড়ে পরীক্ষা কেন্দ্র ত্যাগ করে। ঘটনাটি দেখে তামান্নার সন্দেহ হলে তিনি হল সচিবকে বিষয়টি অবহিত করেন। হল সচিব তামান্নার খাতাটি পরীক্ষা করে দেখেন তার ৫টি অংক কেটে দেয়া হয়েছে। 

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : মহেশখালীর দুর্গম পাহাড়ে অস্ত্র কারখানার সন্ধান
--------------------------------------------------------

ঘটনাটি বুঝতে পেরে কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তামান্নার উত্তর পত্রটি সংশোধনের সুযোগ দেয়। কিন্তু পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের সময় তার ফলাফল স্থগিত করেছেন মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড। 

পরে তামান্না পরীক্ষার খাতা নিয়ে প্রতিকার চেয়ে ১৫ মে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন।

তামান্না অভিযোগ করেন, উচ্চতর গণিত প্রথমপত্র পরীক্ষার আগে অনুষ্ঠিত তার উত্তরপত্র গুলোও একই কায়দায় কাটাকাটি করে ইখলাছুর রহমান তাকে প্রকৃত ফলাফল প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত করেছেন। তাই বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) আলিম পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের সময় তার ফলাফল স্থগিত হয়ে গেছে। 

এদিকে তামান্নার পরীক্ষার ফলাফল স্থগিত হওয়ায় ব্যাপক তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। তামান্না ও তার পরিবার ওই জঘন্য ঘটনার জন্য দায়ী ছাত্রের শাস্তি দাবি করেছেন। 

উল্লেখ্য, মেধাবী ছাত্রী রাফিয়া তাসনিম তামান্না ২০১৬ সালে দাখিল পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে নড়াইল জেলায় প্রথম স্থান এবং খুলনা বিভাগে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছিলেন।

 

এসএস 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়