• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

পাল্টাপাল্টি অভিযোগে রাজশাহীতে চলছে প্রচার প্রচারণা

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী
|  ১৬ জুলাই ২০১৮, ১৫:৪৬ | আপডেট : ১৬ জুলাই ২০১৮, ১৬:৫৫
অভিযোগ পাল্টা অভিযোগের মধ্যে দিয়ে চলছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই রাজশাহীতে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

আজ সোমবার সকাল ৮টায় নগরীর হেতেমখাঁ ছোট মসজিদ এলাকায় থেকে বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল গণসংযোগ শুরু করে। পরে ১০, ১১ ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় গণসংযোগ করেন। 

গণসংযোগকালে বিএনপির মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচন কমিশনারের প্রতি তার কোনো আস্থা নেই। প্রতিপক্ষরা আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে নাটক করছে। রাজশাহীর মানুষ ধানের শীষের পক্ষে রয়েছে। ধানের শীষের গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে আগামী দিন আওয়ামী লীগ এবং সন্ত্রাসীর দল রাজশাহী ছেড়ে পালাবে। 

তিনি আরও বলেন, প্রশাসনের সহযোগিতায় আওয়ামী লীগ ভোটের মাঠ দখলে নেয়ার চেষ্টা করছে। প্রতিদ্বন্দ্বীর সঙ্গে কী আচরণ করা প্রয়োজন তা মানছে না আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। একের পর এক রিটার্নিং অফিসারের কাছে অভিযোগ করেও কোনও লাভ হচ্ছে না। নির্বাচন কর্মকর্তারা একজন প্রার্থীর আজ্ঞাবহ হয়ে কাজ করছে।

----------------------------------------------------

আরও পড়ুন :  ভৈরবে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা

-----------------------------------------------------

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টায় একই স্থান নগরীর হেতেমখাঁ ছোট মসজিদের সামনে থেকে গণসংযোগ শুরু করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। পরে বর্ণালী, কদিরগঞ্জ ও গেটাররোড এলাকায় গণসংযোগ করেন তিনি। এসময়  তিনি ভোটারদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং নৌকার পক্ষে ভোট চান। 

খায়রুজ্জামান লিটন বিএনপির সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপির প্রার্থী তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। একইসঙ্গে তিনি পাল্টা অভিযোগ করে বলেন বিএনপির কর্মীরা তার ব্যানার ফেস্টুন কেটে দিচ্ছে। আর রাজশাহীর প্রশাসন তাদের পক্ষে রয়েছে।

মেয়র প্রার্থী লিটন বলেন, নির্বাচনী প্রচারের নামে ইস্যু তৈরি করতে ব্যস্ত বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা। এজন্য তারা আচরণবিধি লঙ্ঘন করে বিভিন্ন কর্মকাণ্ড চালিয়ে নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করার ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। তবে এ নিয়ে নেতাকর্মীদের সজাগ থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

রাসিকে এবার মোট ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ১৮ হাজার ১৩৮ জন। এর মধ্যে পুরুষের সংখ্যা এক লাখ ৫৬ হাজার ৮৫। আর নারীর সংখ্যা ১ লাখ ৫৬ হাজার ৮৫। ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ১৩৭টি থেকে বেড়ে ১৩৮টি হয়েছে। বর্ধিত ভোটকেন্দ্রটি হচ্ছে অনন্যা শিশু শিক্ষালয়। এটি মহানগরীর ২৪নং ওয়ার্ডে অবস্থিত।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়