• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি
|  ২০ জুন ২০১৮, ১৮:৩২ | আপডেট : ২০ জুন ২০১৮, ১৮:৫৭
পঞ্চগড়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার বিকেলে ওই ছাত্রীর ভাই বাদী হয়ে পঞ্চগড় সদর থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলায় ধর্ষক আনারুল ইসলাম (২৮) ও তার এক সহযোগীকে আসামি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত ধর্ষক ও তার সহযোগী পলাতক রয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, পঞ্চগড় সদর উপজেলার চাকলাহাট ইউনিয়নের ডোলোপাড়া এলাকার স্থানীয় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অষ্টম শেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাঙ্গা ইউনিয়নের অমরখানা এলাকার হবিবর রহমানের ছেলে আনারুল ইসলামের (২৮) মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।
-----------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : শ্রীমঙ্গলে ধরা পড়লো বিরল প্রজাতির মাছ
-----------------------------------------------------------

সম্পর্কের সূত্র ধরে গেল সোমবার (১৮ জুন) রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই স্কুলছাত্রীকে তার বাড়ির পাশ থেকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায় আনারুল ইসলাম (২৮) ও তার সহযোগী সফিকুল ইসলাম (১৯)। পরে গভীর রাতে আনারুল ওই স্কুলছাত্রীকে দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাঙ্গা ইউনিয়নের করতোয়া নদীর পাশে তুলসী শাহ মাজার এলাকায় নিয়ে  ধর্ষণ করে।

পরে আনারুল বিয়ের জন্য বাড়ি থেকে কাপড় ও টাকা নিয়ে আসার কথা বলে ওই ছাত্রীকে সেখানে ফেলে পালিয়ে যায়। পরদিন সকালে ওই স্কুলছাত্রীর কান্নাকাটি শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে তার পরিবারের লোকজনকে খবর দেয়। পরে পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থল থেকে ওই স্কুলছাত্রীকে বাড়িতে নিয়ে যায়। 

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপারেশন) রঞ্জু আহম্মেদ বলেন, ওই স্কুলছাত্রীর বড় ভাই অভিযুক্ত আনারুল ও তার সহযোগী সফিকুলকে আসামি করে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা করেছেন। নির্যাতনের শিকার স্কুলছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আরও পড়ুন : 

জেবি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়