• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

বিকেলে আটক, রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
|  ১৫ জুন ২০১৮, ১২:১৪
শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার চরজুসিরগাঁও এলাকায় ডিবি পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ২ টার দিকে গোসাইরহাট উপজেলার নাগের পাড়া ভদ্রচাপ ব্রিজের ঢালের পাট ক্ষেতে এ ঘটনা ঘটে। তবে, নিহতের পরিবারের দাবি তাকে এদিন বিকেলে বাজার থেকে ধরে নেয়া হয়েছিল।

পুলিশের দাবি, নিহত রুহুল আমিন বাঘার চরভদ্রচাপ গ্রামের মৃতু মোসলেম বাঘার ছেলে। তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ৬টি মামলা রয়েছে। তিনি তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী।

নিহত পরিবারের দাবি, ইদ্রিলপুর নতুন বাজারে এলাকা অভিযান চালিয়ে রুহুল আমিনকে বিকেল ৩টায় আটক করে নিয়ে যায়। রাতে ভদ্রচাপ এলাকায় নিয়ে গুলি করে পুলিশ হত্যা করেছে। তার পরিবারের দাবি তাকে স্থানীয় মাইন উদ্দিন ঢালিসহ স্থানীয় শত্রুরা ষড়যন্ত্র করে হত্যা করেছে। তারা এ হত্যার বিচার চায়।

ডিবি পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে নাগেরপাড়া মুন্সিরহাট এলাকা দিয়ে মাদকের বড় চালান যাচ্ছে। এ খবরে গোসাইরহাট থানা ও ডিবি পুলিশের যৌথ অভিযান চালায়। এসময় গোসাইরহাটের ভদ্রচাপ ব্রিজের নিচে পাটকেক্ষেতে মাদক ব্যবসায়দের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ হয়। এতে রুহুল আমিন বাঘা গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। তাকে উদ্ধার করে শরীযতপুর সদর হাসপাতালে নেয়ার পর তিনি মারা যান। এ ঘটনায় পুলিশের এএসআই আহসান হাবীব ও কনসটেবল  মতিউর রহমান আহত হন।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৯টি ককটেল, ২৮৩পিজ ইয়াবা, দেড় কেজি গাজা, একটি দেশীয় ওয়ান স্যুটারও ২ রাউন্ড গুলি, ২টি ছোরা, ১টি রামদা উদ্ধার করেছে।

নিহত রুহুল আমিন বাঘার বড় ভাই নুর মোহাম্মদ বাঘা বলেন, আমার ভাইকে ষড়যন্ত্র মূলকভাবে মাইন উদ্দিন ঢালি পুলিশের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার বিকেলে ইদ্রিলপুর নুতন বাজার এলাকা থেকে ধরে নিয়ে গুলি করে হত্যা করেছে। আমি আমার ভাই হত্যার বিচার চাই।

গোসাইরহাট থানার ওসি মেহেদী মাসুদ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি বড় একটি ইয়াবা চালান নাগেরপাড়া ভদ্রচাপ এলাকা দিয়ে যাচ্ছে। এ সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি ও গোসাইরহাট থানা যৌথ অভিযান চালায়। নাগেরপাড়া ভদ্রচাপ এলাকার ব্রিজের নিকট পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে।

এতে একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে পাটক্ষেতে পড়ে থাকে। তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার মৃত ঘোষণা করে। পরে জানা যায় নিহত ব্যক্তি রুহুল বাঘা, যিনি তালিকা ভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে ৬টি মামলা রয়েছে।

জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়