• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

‘কসমেটিকের টেহা দিতে না পারায় মাইয়াডা আমার মইরা গেল’

পটুয়াখালী প্রতিনিধি
|  ০৯ জুন ২০১৮, ১৫:২৬ | আপডেট : ০৯ জুন ২০১৮, ১৬:১২
ঈদের নতুন জামা ও প্রসাধনী কিনতে না পারায় বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে পটুয়াখালীর দুমকিতে সূবর্ণা আক্তার (১৪) নামে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দুমকি হাসপাতাল রোড এলাকায় নিজ বাড়িতে ওড়না গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। সূবর্ণা দুমকির নাসিমা কেরামত আলী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী এবং ওই এলাকার মুড়ি বিক্রেতা মো. কালাম হাওলাদারের মেয়ে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, এবারের ঈদে নতুন জামা ও প্রসাধনী কেনার জন্য বায়না ধরে সূবর্ণা আক্তার। অভাবের সংসারে বাবা-মা নতুন জামা ও প্রসাধনী কেনার জন্য কিছু টাকা দিলেও তাতে সন্তুষ্ট হতে পারেনি মেয়ে সূবর্ণা। তাই বাবা-মায়ের সঙ্গে রাগ-অভিমান করে সূবর্ণা আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : গোবিন্দগঞ্জে অজ্ঞান পার্টির খপ্পড়ে পড়ে ৫ ব্যক্তি হাসপাতালে
--------------------------------------------------------

এ ব্যাপারে সূবর্ণার মা ইয়ানুর বেগম আরটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘মোর দুইডা পোলা আর এই একটা মাইয়াই ছিল। আর বাপের তো তেমন আয়-রোজগারও নেই। হেরপরও অরে নতুন জামা কিনার জন্য পনেরশ’ (এক হাজার পাঁচশত) টেহাও দিছিলাম। হেইপরও হের কসমেটিক লাগবো, হেই টেহা দিতে না পারায় মাইয়াডা আত্মহত্যা করলো’।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দিবাকর চন্দ্র দাস আরটিভি অনলাইনকে জানান, মরদেহ থানায় আনা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন :

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়