• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

খুব সতর্কভাবে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে সরকার : সেতুমন্ত্রী

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট, নোয়াখালী
|  ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৪:৩৯ | আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০১৭, ১৯:৪৮
সরকার খুব সতর্কভাবে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে। মিয়ানমার আমাদের আকাশসীমা লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটিয়েছে। এই অবস্থায় কোনো উসকানিতে সাড়া না দেয়ার জন্য আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সেনাবাহিনী ও বিজিবিকে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার সকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতিসংঘে রোহিঙ্গা ইস্যুতে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। কেবল সমালোচনা করছে বিএনপি।  তারা প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য না শুনে সমালোচনা করছে, বিরোধিতার জন্য বিরোধিতা করছে। 

গেলো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় (বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোরে) জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে পাঁচটি প্রস্তাব দিয়ে বিশ্ববাসীর সামনে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া ক্ষুধার্ত-দুর্দশাগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের মুখগুলো দেখার পরপরই আমি এখানে এসেছি। শত শত বছর ধরে মিয়ানমারে বসবাসকারী ওই রোহিঙ্গারা জাতিগত নিধনের শিকার।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত ৮ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে। রাখাইন রাজ্যের চলমান অস্থিরতা ও মানবাধিকার লঙ্ঘন আবারো বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের পরিস্থিতিকে নৃশংস করে তুলেছে। রাখাইন রাজ্যের সহিংসতা থেকে বাঁচতে প্রতিদিন বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে হাজার হাজার রোহিঙ্গা। আইএমও এরই মধ্যে সাম্প্রতিক সহিংসতা থেকে বাঁচতে ৪লাখ ৩০ হাজার মানুষের পালিয়ে আসার তথ্য দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা বিস্মিত যে তাদের ফিরে যেতে না দেয়ার জন্য বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে মাইন পুতে রেখেছে মিয়ানমার। এইসব মানুষকে অবশ্যই নিরাপত্তা সুরক্ষা ও মর্যাদার সঙ্গে রাখাইনে ফেরার সুযোগ দিতে হবে। একই সঙ্গে আমরা সব ধরনের সহিংস ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানাচ্ছি। এ ব্যাপারে আমাদের সরকার ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করেছে।

 

জেবি/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়