close
ঢাকা, রোববার, ২০ আগস্ট ২০১৭ | ০৫ ভাদ্র ১৪২৪

মুশফিকের বাবার স্কুল অনুমোদনহীন!

জি এম সজল, আরটিভি অনলাইন
|  ১৬ মে ২০১৭, ২২:১১ | আপডেট : ১৭ মে ২০১৭, ০৮:৫০
‘বর্ণালী বিদ্যায়তন’ নামে যে স্কুলটি পরিচালনা করছেন ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমের বাবা মাহবুব হামিদ তারা সেটি অনুমোদনহীন বলে জানা গেছে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসেন আলী বলেন, আমাদের তালিকায় ‘বর্ণালী বিদ্যায়তন’ নামে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম নেই।  

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শহরের এমপিওভুক্ত মাটিডালি উচ্চবিদ্যালয়ে পাঠ দেয়া হতো তৃতীয় থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত। পাঁচ বছর আগে মাহবুব হামিদ তারা সেখানে পঞ্চম থেকে দশম এবং মুশফিকের পৃষ্ঠপোষকতায় ‘বর্ণালী বিদ্যায়তন’ নাম দিয়ে কেজি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করেন। অভিযোগ ওঠে একই ক্যাম্পাস, একই ভবন, বেঞ্চ, চেয়ার, টেবিলসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ব্যবহার করে আলাদা ব্যাংক হিসাব খুলে ওই বর্ণালী বিদ্যায়তন চালান মুশফিকুরের বাবা মাহবুব হামিদ তারা।

জানা যায়, এই বিদ্যালয় নিয়ে মাহবুব হামিদের সঙ্গে বিরোধে জড়ান ওই এলাকার জাসদ নেতা আইনজীবী ইমদাদুল হক। এ ব্যাপারে ইমদাদুল হক এক সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে তিনি বলেন, এমপিওভুক্ত বিদ্যালয়টির অবকাঠামো ব্যবহার করে, সব নিয়ম-কানুন ভেঙে মুশফিকুর রহিমের বাবা মাহবুব হামিদ এখানে প্রাইভেট বিদ্যালয় চালু করে অর্থ উপার্জন করেন। এ বিষয়ে এলাকাবাসীর পক্ষে আমি প্রতিবাদ করার কয়েক দিন পরেই আমার ছেলে মাসুককে খুন করা হয়। আমার ছেলে খুনে মুশফিকুর রহিমের বাবা দায়ী।

মাটিডালি এলাকার আরেক আইনজীবী হাবিবুর রহমান অভিযোগ করেন, মাহবুব হামিদ প্রভাব খাটিয়ে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টির ভেতরে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসেন আলী বলেন, একই ক্যাম্পাসে দুটি নামে দু’শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থাকতে পারে না। 

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোপাল চন্দ্র বলেন, মাটিডালি উচ্চবিদ্যালয়ের ভেতরে বর্ণালী বিদ্যায়তন নামে অন্য একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেটা জানা ছিল না। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রায়হানা ইসলাম বলেন, শিক্ষা কর্মকর্তার এটা না জানার কথা না। আমি তাকে ব্যবস্থা নিতে বলবো।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে মুশফিকের পিতা  মাহবুব হামিদ তারা বলেন, সবকিছু নিয়ম মেনেই করা হয়েছে।

এদিকে স্কুলছাত্র মাসুক ফেরদৌস খুন হবার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের বাবা মাহবুব হামিদ তারা ও চাচা পৌর কাউন্সিলর মেজবা উল হামিদসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বগুড়া সদর থানায় হত্যা মামলা করেন মাসুকের বাবা জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক এমদাদ। 

এর আগে ১৩ মে বগুড়া শহরের মাটিডালি হাজীপাড়ায় নিজ বাড়ির পাশে বেলাল হোসেন নামে এক প্রতিবেশী বাসায় খুন হয় এসওএস স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র মাসুক ফেরদৌস। খুনের ঘটনার প্রায় ৭২ ঘণ্টা পর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হলো।

এসএস 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়