close
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৭ | ১৪ বৈশাখ ১৪২৪

চবি’তে ছাত্রলীগের দুই নেতা বহিষ্কার, শাটল ট্রেন বন্ধ

চট্টগ্রাম ব্যুরো
|  ২০ এপ্রিল ২০১৭, ১৭:১৪ | আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০১৭, ২৩:০০
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির দায়ে ছাত্রলীগের দুই নেতাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

বহিষ্কৃতরা হলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপদপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান বিপুল ও সহ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কায়ছার।

এর কয়েকদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির অভিযোগে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল কায়ছারকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সংঘর্ষের পর  শাটল ট্রেনের হোস পাইপ  কেটে দেন  এবং গাড়ি ভাংচুর করে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। দেড়টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গামী শাটল বন্ধ রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর টিপু আরটিভি অনলাইনকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির অভিযোগে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ তাদের দুই জনকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে।

ষোলশহর রেলস্টেশনের স্টেশন মাষ্টার শাহাব উদ্দিন আরটিভি অনলাইনকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সংঘর্ষের পর আন্দোলনকারীরা শাটল ট্রেন থামিয়ে হোস পাইপ কেটে দেন। দুপুর দেড়টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গামী কোনো শাটল চলাচল করছে না।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগর আরটিভি অনলাইনকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কর্তৃক বহিষ্কৃত আব্দুল্লাল আল কায়ছার নামে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে  না দেয়ার জেরে  পুলিশের সঙ্গে  ছাত্রলীগ একাংশের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের ৫ সদস্যসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সকাল ১০ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জেরে বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ৪০১ নম্বর কোর্সের পরীক্ষাটি স্থগিত করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এক গ্রুপের নেতা মাহবুবুল হক শাহীনের ওপর হামলার ঘটনায় ২০১৬ সালে  যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শির্ক্ষাথী আবদুল্লাহ আল কায়সারকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করে প্রশাসন। আজ তার চতুর্থ বর্ষের স্নাতক ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ নিতে বিভাগে গেলে বহিষ্কৃত হওয়ায় তাকে পরীক্ষায় অংশ নিতে দেয়নি পরীক্ষা কমিটির সদস্যরা।

পরে এ খবর ছড়িয়ে পড়েল ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সামনে এসে জড়ো হয়। পরে পুলিশ এসে তাদের লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দিলে  তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে দেয়।

জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়