• ঢাকা সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫

দু’শিশুকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক
|  ১৪ আগস্ট ২০১৬, ২১:৩৯ | আপডেট : ১৫ আগস্ট ২০১৬, ১০:০৪
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দাম্পত্য কলহের জেরে দুই মেয়েশিশু সন্তানকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন মা নাজমুন্নাহার লাইজু (২৮)। দু’সন্তান হচ্ছে মাইশা আক্তার কনা (২) ও আট মাসের মাহিয়া আক্তার বেবি।

রোববার বিকেলে উপজেলার দাউদখালী ইউনিয়নের হারজী নলবুনীয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ নিহত তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। তবে কি কারণে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে তা জানা যায়নি।

পুলিশ জানায়, ঘটনার পর গৃহবধূর স্বামী উপজেলার গুদিঘাটা সরোজিনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মনিরুজ্জামান ফরিদ খান পলাতক। তিনি হারজী নলবুনীয়া  গ্রামের বাহার আলী খানের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, মনিরুজ্জামানের সঙ্গে উপজেলার ধাণীসাফা গ্রামের আব্দুর রব তালুকদারের মেয়ে লাইজুর তিন বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর দু’টি মেয়ে সন্তান জন্ম নেয়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলছিল। রোববার ফরিদ নিজের কর্মস্থলে যান। ঘরে তখন স্ত্রী লাইজু ও তার দুই সন্তান ছিল। দুপুরের পর লাইজু ঘরের দরজা বন্ধ করে প্রথমে দুই শিশুকে বিষপান করিয়ে হত্যা করে। পরে নিজেও বিষপান করেন।

বিকেলে ফরিদ স্কুল থেকে ফিরে ঘরের দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে স্ত্রী ও দুই শিশু সন্তানকে পড়ে থাকতে দেখেন। তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। পরে স্থানীয় গ্রাম্য চিকিৎসক রিয়াজকে খবর দেয়া হয়। তিনি এসে তিনজনকেই মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এরপর নিহত লাইজুর স্বামী ফরিদ পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশেীরা থানায় খবর দেয়। পুলিশ সন্ধ্যায় ঘটনাস্থলে এসে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

মঠবাড়িয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সঠিক কারণ বের করতে তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় মঠবাড়িয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়