• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

বিজয়ী হলেন যারা

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৫:৩৯ | আপডেট : ২৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ১০:৪৩
প্রথমবারের মতো ৬১ জেলা পরিষদের নির্বাচন শেষ হয়েছে। ভোট হয়নি তিন পার্বত্য জেলায়। সকাল ৯টা থেকে ভোট চলে বিকেল ২টা পর্যন্ত। ৬১ জেলার মধ্যে আগেই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন ২১ চেয়ারম্যান। তারা সবাই আওয়ামী লীগ সমর্থিত। ওই জেলাগুলোতে চেয়ারম্যান পদে ভোট না হলেও সদস্য পদে ভোট হয় যথানিয়মে। এছাড়া বগুড়ার চেয়ারম্যান পদসহ তিনটি ওয়ার্ডের সাধারণ পদে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয় হাইকোর্টের নির্দেশে।

এদিকে ভোট গণনা শেষে আসতে শুরু করেছে ফলাফল। জেনে নেয়া যাক বিস্তারিত-

স্বতন্ত্র যারা

চেয়ারম্যান পদে ১৪ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। এদের মধ্যে সিংহভাগই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। তারা হলেন, পঞ্চগড়ে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. আমানুল্লাহ বাচ্চু, নীলফামারীতে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, রাজশাহীতে মোহাম্মদ আলী সরদার, মেহেরপুরে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রসুল, চুয়াডাঙ্গায় শেখ শামসুল আবেদীন খোকন, নড়াইলে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, সাতক্ষীরায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম, পিরোজপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন মহারাজ, জামালপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ চৌধুরী, শেরপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির রোমান, সুনামগঞ্জে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নূরুল হুদা মুকুট, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ শফিকুল আলম, চাঁদপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ওসমান গণি পাটোয়ারি। এছাড়াও গাইবান্ধায় জাতীয় পার্টি-জাপার সাঘাটা উপজেলার সাধারণ সম্পাদক (বহিস্কৃত) আতাউর রহমান সরকার আতা জয় পান।
 
আওয়ামী লীগ সমর্থিত যারা

আওয়ামী লীগ সমর্থিত বিজয়ী ২৪ প্রার্থী হলেন, রংপুরে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সাফিয়া খানম, লালমনিরহাটে এডভোকেট মতিয়ার রহমান, কুড়িগ্রামে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাফর আলী, চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মইনুদ্দিন মণ্ডল, পাবনায় জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল রহিম লাল, ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কনক কান্তি দাস, মাগুরায় পঙ্কজ কুন্ডু, খুলনায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ, বরগুনায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাবেক এমপি মো. দেলোয়ার হোসেন, পটুয়াখালীতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান মোশারফ হোসেন, বরিশালে মইদুল ইসলাম, ময়মনসিংহে জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, নরসিংদীতে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এডভোকেট আসাদুজ্জামান, মানিকগঞ্জে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মহিউদ্দিন, রাজবাড়ীতে আব্দুল জব্বার, গোপালগঞ্জে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক, মাদারীপুরে মো. মিয়াজ উদ্দিন খান, শরীয়তপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছাবেদুর রহমান খোকা, মৌলভীবাজারে মুক্তিযোদ্ধা মো. আজিজুর রহমান, সিলেটে এডভোকেট লুত্ফুর রহমান, কুমিল্লায় নৌ-বাহিনীর সাবেক প্রধান রিয়ার এডমিরাল (অব.) আবু তাহের, নোয়াখালী সাবেক প্রশাসক ও মুক্তিযোদ্ধা ডা. এবিএম জাফর উল্যাহ, লক্ষীপুরে আলহাজ্ব মো. শামছুল ইসলাম, কক্সবাজারে সাবেক সংসদ সদস্য মোস্তাক আহমদ চৌধুরী।

এছাড়া ৬১টি জেলার মধ‌্যে ২১টিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন।

তারা হলেন- নারায়ণঞ্জে আনোয়ার হোসেন, গাজীপুরে মো. আখতারুজ্জামান, ঠাকুরগাঁওয়ে সাদেক কোরাইশী, জয়পুরহাটে আরিফুর রহমান রকেট, নাটোরে সাজেদুর রহমান খাঁন, সিরাজগঞ্জে আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, যশোরে শাহ হাদিউজ্জামান, বাগেরহাটে শেখ কামরুজ্জামান টুকু, ঝালকাঠিতে সরদার শাহ আলম, ভোলায় আব্দুল মোমিন টুলু, নেত্রকোনায় প্রশান্ত কুমার রায়, মুন্সীগঞ্জে মো. মহিউদ্দিন, দিনাজপুরে আজিজুল ইমাম চৌধুরী, নওগাঁয় এ কে এম ফজলে রাব্বি, ফেনীতে আজিজ আহমেদ চৌধুরী, কিশোরগঞ্জে মো. জিল্লুর রহমান, ঢাকায় মো. মাহবুবুর রহমান, হবিগঞ্জে মো. মুশফিক হুসেন চৌধুরী, চট্টগ্রামে এম এ সালাম, টাঙ্গাইলে ফজলুর রহমান খান ফারুক ও ফরিদপুরে মো. লোকমান মৃধা।

 

এইচটি / এসএস/ এসজে/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়