• ঢাকা রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫

তোমাদের ঋণ শোধ হবে না

জাকির হোসাইন
|  ১৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩:৪৫ | আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ০৮:৫৭
মহান বিজয় দিবস। ১৬ ডিসেম্বর। বাঙালি জাতির বীরত্বের এক অবিস্মরণীয় দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে ৯ মাসের রক্তাক্ত যুদ্ধ শেষে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) আত্মসমর্পণ করে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে অপ্রতিরোধ্য বাঙালির স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র বাংলাদেশের।

লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত এ বিজয়ের দিনে শ্রদ্ধাভরে জাতি স্মরণ করছে তার শ্রেষ্ঠ সন্তানদের। যাদের ঋণ কোনোদিন শোধ হবে না, শোধ হবার নয়। বাঙালির যতো অর্জন, যতো গৌরব সবই শহীদদের অবদান। এই গৌরবগাথায় যেমন আছে বিজয়ের আনন্দ, তেমনি আছে স্বজন হারানোর বেদনাও। সেদিন জাতির জীবনে যে পরম প্রাপ্তি যোগ হয় তার জন্য দিতে হয় চরম মূল্য। স্বাধীনতার জন্য এতো চড়া দাম পৃথিবীর অতি অল্প জাতিই দিয়েছে।  

১৭৯১ সালের ২৫ মার্চ কালরাত্রিতে নিরস্ত্র বাঙালির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল পাকিস্তানি হায়েনারা। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সেই রাতেই শুরু হয় প্রতিরোধ। যার কাছে যা ছিল তা নিয়েই গড়ে তোলে শক্ত প্রতিরোধ। বাধ্য করে হানাদারদের আত্মসমর্পণে। দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ, ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত হয় কাঙ্ক্ষিত এ বিজয়।

বিজয়ের এই ৪৫ বছর অনেক চড়াই-উৎরায়ের মধ্য দিয়ে পথ পেরিয়েছে জাতি। রাজনীতি এগিয়েছে অমসৃণ পথে। বাধাগ্রস্ত হয়েছে গণতন্ত্র। তারপরও লক্ষ্য অর্জনে থেমে থাকেনি জাতি। দারিদ্র্য ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হয়েছে। লড়াই করতে হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে। মুখোমুখি হতে হয়েছে প্রবল বন্যা, ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের। এই বন্ধুর পথপরিক্রমায় হতোদ্যম হয়নি এ দেশের সাহসী জনতা।

দেরিতে হলেও শুরু হয় কলঙ্ক মোচনের চেষ্টা। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার শেষ হয়েছে। অনেকের রায় কার্যকরও হয়েছে। জাতির আশা বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পালিয়ে থাকা অপরাধীদের ধরে এনে রায় কার্যকর করবেন।

চলছে একাত্তরের মানবতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কার্যক্রম। এরই মধ্যে প্রথম সারির যুদ্ধাপরাধীদের দণ্ড কার্যকর হয়েছে। বাকিদেরও হবে এ আশায় আগ্রহে অপেক্ষায় জাতি।

যোগ্য নেতৃত্ব ও কঠোর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে ক্ষুধা ও দরিদ্রতাকে জয় করতে পেরেছে বাঙালি। আজ বিশ্ব দরবারে এক গর্বিত জাতির নাম বীর বাঙালি। অপ্রতিরোধ্য দেশ বাংলাদেশ। পরম বিজয় গাঁথার নাম লাল-সবুজে গড়া বাংলাদেশ।

জেএইচ/ কে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়