• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

মার্কিন নৌবহরও দমাতে পারেনি বাঙালিকে

নুৃসরাত জাহান সিনথী
|  ০৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৩:০৭ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১:০৮
৯ ডিসেম্বর ১৯৭১। এ দিনে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাংলার সূর্য সন্তানেরা এগিয়ে যাচ্ছিলেন কাঙ্ক্ষিত বিজয়ের দিকে। মুক্তিসেনারা বীরদর্পে মুক্ত করেন কুমিল্লার দাউদকান্দি ও মেঘনা পাড়ের বিস্তীর্ণ অঞ্চল, গাইবান্ধা, গাজীপুরের শ্রীপুর, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ ও নেত্রকোনাসহ বাংলার  বেশ কিছু অঞ্চল। একাত্তরের এ মাসে এসব অঞ্চলে সগৌরবে উড়তে থাকে লাল সবুজের পতাকা। এ সময় বেসামাল পাকিস্তান বাহিনী ভারতীয় হামলার অজুহাতে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়।

অন্যদিকে স্বাধীনতা সংগ্রামের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নতুন আরেক ষড়যন্ত্রের সূচনা হয়। এদিন বাঙালির মনোবল ভাঙতে  বঙ্গোপসাগরের দিকে যাত্রা শুরু করে মার্কিন সপ্তম নৌবহর।

এদিকে মুক্তি পাগল বাঙালি পাকি বাহিনীর এতসব কূটকৌশলকে কিছুতেই পাত্তা দেয়নি। তাদের সাহসী আক্রমণে ভীত হয়ে পাকিস্তানি সেনাপতি নিয়াজি এদিন রাওয়ালপিন্ডিতে বার্তা পাঠান। তিনি বলেন, আকাশে শত্রুদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।পলায়নরত সেনাদের এখন কোনভাবেই সংগঠিত করা সম্ভব নয়।শত্রুসেনারা কামান ও ট্যাঙ্ক থেকে অবিরাম গোলা নিক্ষেপ করে চলেছে। পরিস্থিতি অত্যন্ত সংকটাপন্ন।

এদিকে মুক্তির গন্তব্য থেকে কিছুতেই পিছ-পা হচ্ছিলো না বাংলার বীর সন্তানেরা। অসীম সাহসে দেশের মাটি থেকে দখলদারদের চির বিদায় জানানোর সর্বাত্মক মরণপণ যুদ্ধ চালতে থাকে।

আরকে/ এসজেড

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়