• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

বেতারে পাকিস্তান বাহিনীকে আত্মসমর্পণের আহ্বান

নুসরাত জাহান সিনথী
|  ০৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ১০:৫৭ | আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ১০:০৫
আজ ৮ ডিসেম্বর  একাত্তরের এই দিনে হানাদারমুক্ত হয় বরিশাল, পটুয়াখালী, ঝালকাঠিসহ, বাংলার বেশ কিছু অঞ্চল। বেতারে পাকিস্তানবাহিনীকে আত্মসর্মপণের আহ্বান জানানো হয়। অন্যদিকে বেসামরিক প্রতিরক্ষা জোরদার করতে, ঢাকায় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ স্থাপন করে, পাক সরকার।

বিজয় মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে পাকিস্তানি বাহিনীর পরাজয় ঘনিয়ে আসে। একাত্তরের এই দিনে ৯ নম্বর সেক্টরের অধীনে মুক্তিসেনারা বীরত্বের সঙ্গে মুক্ত করেন বরিশাল, পটুয়াখালী, ঝালকাঠিসহ বেশ কিছু অঞ্চল। চারদিকে শুরু হয় যুদ্ধজয়ের আনন্দ। একের পর এক পরাজয়ের খবরে পাকিস্তানের ইস্টার্ন হেড কোয়ার্টারে নেমে আসে বিষাদের কালো ছায়া।

এদিন বেতারে পাকবাহিনীকে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানিয়ে, বিমানের মাধ্যমে লিফলেট ছড়িয়ে দেয়া হয়। অপরদিকে ভারত থেকেও আসে ‘পাকিস্তান পূর্ববাংলায় পরাজয় স্বীকার করলে ভারত সব অঞ্চলের যুদ্ধ বন্ধ করে দেবে’ এমন ঘোষণা।

এই দিন ঢাকায় স্থাপন করা পাক সরকারের প্রতিরক্ষা তহবিলে মুক্ত হস্তে অর্থ সহযোগিতার জন্য, জনগণের প্রতি নির্লজ্জ আহ্বান জানান, ইয়াহিয়া খান।  

অন্যদিকে, সদ্য নিয়োগ পাওয়া প্রধানমন্ত্রী নজরুল আমিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘পাকিস্তান ধৈরয ও সুষ্ঠু পরিকল্পনার মাধ্যমে শত্রুর ওপর চরম আঘাত হানবে।’

এভাবেই একের পর এক, পাকিস্তানি বাহিনীর হিংস্র ষড়যন্ত্রের কঠোর ও উপযুক্ত উত্তর দিতে থাকে বাংলার বীর মুক্তিযোদ্ধারা। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে আসে বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রামের চূড়ান্ত বিজয়ের ক্ষণ।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়