• ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৩ আশ্বিন ১৪২৫

প্রথম মুক্তাঞ্চল যশোর

আতিকা রহমান
|  ০৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৬:২২ | আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৭:০৬
একাত্তরের এদিনে দেশের প্রথম মুক্তাঞ্চল হিসেবে যশোর মুক্ত হয় পাকিস্তানি বাহিনীর কবল থেকে। আর ভারতকে অর্থনৈতিক সাহায্য না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আমেরিকা। তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট লিওনিদ ব্রেজনেভ কোনো বহিঃশক্তির হস্তক্ষেপ ছাড়াই পাক-ভারত সংঘর্ষের শান্তিপূর্ণ সমাধানের আহ্বান জানান। 

মুক্তিসেনাদের মরণপণ সংগ্রামের সাফল্যের আরো একটি কৃতিত্বের অনন্য অধ্যায় রচিত হয় একাত্তরের এদিনে। পাকিস্তানি বাহিনীর অন্যতম শক্তিশালী দুর্গ যশোরকে মুক্ত ঘোষণা করে মুক্তিবাহিনী। যশোর দিয়ে শুরু অঞ্চলভিত্তিক মুক্ত হবার যাত্রা।  

মুজিবনগর সরকারের রাষ্ট্রপতি আর প্রধানমন্ত্রী আরো জোর কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়ে যায় প্রতিবেশি দেশগুলোর স্বীকৃতি আদায়ে। আজকের দিনে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে একটি যৌথ সহযোগিতা চুক্তি সই হয়। সিদ্ধান্ত হয় মুক্তিবাহিনী ভারতীয় ইস্টার্ন কমান্ডের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরার নেতৃত্বে যুদ্ধ করবে। 
 
অন্যদিকে পাকিস্তান সরকার নূরুল আমিনকে প্রধানমন্ত্রী করে কেন্দ্রে কোয়ালিশন সরকার গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়। 

গভর্নর আবদুল মালেক এক বার্তায় ইয়াহিয়াকে জানায়, যশোর বিপর্যয়ের ফলে প্রদেশের পশ্চিমাঞ্চলের পতন প্রায় সম্পন্ন এবং মেঘনার পূর্বদিকের পতনও সময়ের ব্যাপার; এ অবস্থায় ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে যদি প্রতিশ্রুত সামরিক সহায়তা না পৌঁছায়, তবে জীবন রক্ষার জন্য ক্ষমতা হস্তান্তর করতে আলোচনা শুরু করা বাঞ্ছনীয়। 
 
এ বার্তা চরম দুশ্চিন্তায় ফেলে দেয় ইয়াহিয়াকে।  

এদিন বাংলাদেশকে সহযোগিতার কারণে আমেরিকা ভারতকে অর্থনৈতিক সাহায্য বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়। তবে সব বাধাকে অতিক্রম করে বাংলার দামাল ছেলেরা যুদ্ধ চালিয়ে যায় পাকসেনাদের বিরুদ্ধে।

এম

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়