• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিতে ইন্দিরাকে চিঠি

আতিকা রহমান
|  ০৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০:৪৭ | আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২:০৪
৪ ডিসেম্বর চুয়াডাঙ্গা, সিরাজগঞ্জ, শেরপুর, ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড় দখলদারমুক্ত করে মুক্তিযোদ্ধারা। এদিন ইন্দিরা গান্ধী কলকাতায় এক সমাবেশে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়ার আভাস দেন। অন্যদিকে, পাকিস্তানের পক্ষে জাতিসংঘে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব আনে যুক্তরাষ্ট্র।

একাত্তরের এইদিনে উত্তরাঞ্চলে বেশ কয়েকটি শত্রু ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেন মুক্তিযোদ্ধারা। জামায়াতে ইসলামীর তৎকালীন আমির মওলানা মওদুদী ইয়াহিয়াকে আশ্বস্ত করে চিঠি লিখেন প্রতিটি দেশপ্রেমিক মুসলমানই আছে ইয়াহিয়ার সঙ্গে।

অন্যদিকে ৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম এবং প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর কাছে চিঠি পাঠান। ঐ দিন বিকেলে কলকাতায় এক সমাবেশে ইন্দিরা গান্ধী বাংলাদেশকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়ার ইঙ্গিত দিলে ভারতীয় জনগন তাতে সমর্থন জানায়।

শুরু হয় বিদেশী ষড়যন্ত্র। পরাজয় নিশ্চিত জেনে ইয়াহিয়া যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব করেন জাতিসংঘে। সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেটো দিলে তাতেও থামেনা আগ্রাসীদের কূটচাল। নিরাপত্তা পরিষদে হেরে গিয়ে সাধারণ পরিষদে প্রস্তাব তুললে তা পাস হয়। এ সময় নিউইয়র্কে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল বিভিন্ন রাষ্ট্রের সমর্থন আদায়ে জোর তৎপরতা চালায়।

এত বাধা উপেক্ষা করে যুদ্ধ অব্যাহত রাখে মুক্তিকামী বাঙালিরা। ক্রমান্বয়ে জয়ের পথে এগুতে থাকে বাংলার মুক্তি পাগল দামাল ছেলেরা।

এপি / জেএইচ/ এম

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়