• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

এ দিনে হানাদারমুক্ত হয় ফুলছড়ি

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৪:১৩ | আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৪:২৪
গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা হানাদারমুক্ত দিবস ৪ ডিসেম্বর। ৭১’র এ দিনে পাকিস্তানের হানাদার বাহিনীর কবল থেকে মুক্ত হয় এ এলাকা।

মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত পর্যায়ে ১১ নং সেক্টরের কোম্পানি কমান্ডার রুস্তম আলী খন্দকারের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধাদের একটি  দল উপজেলার গলনার চরে অবস্থান নেয়। ৩ ডিসেম্বর সকালে প্লাটুন কমান্ডার গৌতম চন্দ্র মোদকের নেতৃত্বে কয়েকজন গেরিলা ফুলছড়ির বিভিন্ন পাকিস্তানি সেনা শিবিরে আক্রমণ চালায়।এসময় তারা ফুলছড়ি পুলিশ ষ্টেশনে (থানা) আক্রমণ করে অস্ত্রাগার থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ নিয়ে যায়।

দিনব্যাপী গেরিলা যুদ্ধের পর সন্ধ্যার দিকে গবিন্দিতে পাকিস্তানের সেনাদের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মুখ যুদ্ধ হয়। যুদ্ধে পাকিস্তানের ২৭ সেনা নিহত হয়। অন্যদিকে শহীদ হন ৫ মুক্তিযোদ্ধা। তারা হলেন জাহেদুল ইসলাম বাদল, আফজাল হোসেন, আব্দুস সোবহান, ওসমান গণি ও কাবেজ আলী।

মুক্তিযোদ্ধাদের প্রবল আক্রমণে পরাস্ত হয়ে ভোরের আগেই হানাদার বাহিনী তল্পিতল্পা গুটিয়ে ফুলছড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। হানাদারমুক্ত হয় গাইবান্ধার ফুলছড়ি।

পরে ৫ শহীদ মুক্তিযোদ্ধার মরদেহ সাঘাটার মুক্তিনগর ইউনিয়নের খামার ধনারুহা প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সমাহিত করা হয়। স্বাধীনতার পরে এখানে তৈরি করা হয় শহীদ স্মৃতিসৌধ। এ উপলক্ষ্যে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আজ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

কে/ডিএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়