রিজার্ভ চুরি: ২৫ বারেও দাখিল হয়নি তদন্ত প্রতিবেদন

প্রকাশ | ২৯ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৪৭ | আপডেট: ২৯ আগস্ট ২০১৮, ১৭:৪৬

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলে আবারও ব্যর্থ হয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। এ নিয়ে ২৫ বারেও সংস্থাটি আদালতের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি।

আজ বুধবার ধার্য তারিখে তদন্ত সংস্থা সিআইডি কোন প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম আমিনুল হক প্রতিবেদন দাখিলের নতুন  তারিখ আগামী ২ অক্টোবর ঠিক করেন।

এর আগে গত ১২ জুলাই আদালত রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনার মামলায় প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পিছিয়ে আজ ২৯ আগস্ট ধার্য করেন।
-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : নরসিংদীতে এনা পরিবহনের বাসচাপায় নিহত ২
-------------------------------------------------------

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্কে (ফেড) রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। পাঁচটি সুইফট বার্তার মাধ্যমে চুরি হওয়া এ অর্থের মধ্যে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া ২ কোটি ডলার ফেরত আসে। তবে ফিলিপিন্সে যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার জুয়ার টেবিল ঘুরে হাতবদল হয়। এই অর্থ চুরিতে দেশের ভেতরের কোনও একটি চক্রের হাত থাকতে পারে বলে সন্দেহ করা হয়।

খোয়া যাওয়া রিজার্ভের অর্থের দেড় কোটি ডলার ফেরত এসেছে। তবে বাকি অর্থ উদ্ধারে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তৎপরতা চালানো হলেও এখনও দৃশ্যমান তেমন অগ্রগতি নেই।

যদিও বাংলাদেশ ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রিজার্ভের বাকি টাকার পুরোটাই ফেরত আসবে।

সাইবার জালিয়াতির মাধ্যমে রিজার্ভের অর্থ চুরির এই ঘটনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড বাজেটিং বিভাগের যুগ্ম পরিচালক জুবায়ের বিন হুদা বাদী হয়ে ২০১৬ সালের ১৫ মার্চ মতিঝিল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ (সংশোধনী ২০১৫)-এর ৪ ধারাসহ তথ্য ও প্রযুক্তি আইন, ২০০৬-এর ৫৪ ও ৩৭৯ ধারায় করা মামলায় সরাসরি কাউকে আসামি করা হয়নি।

অজ্ঞাত পরিচয়দের আসামি করা এ মামলা তদন্তের দায়িত্ব পাওয়া সিআইডিকে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২০১৬ সালের ১৯ এপ্রিল প্রথমবারের মতো দিন ধার্য করে দিয়েছিল আদালত।

এরপর গত দুই বছরে দফায় দফায় সময় আবেদন করে প্রতিবেদন দাখিল পিছিয়েছে তারা।

আরও পড়ুন : 

 

এসআর