• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

গরুকে হরমোন ইজেকশন দেয়ায় ২ চিকিৎসক ও ২ ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৪৭ | আপডেট : ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৭:২৭
রাজধানীর কুরবানির হাটে নিষিদ্ধ স্টেরয়েড হরমোন ইনজেকশন প্রয়োগের দায়ে দুই ভুয়া চিকিৎসককে এক বছর ও  দুই গরু ব্যবসায়ীকে  দুই মাস কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর গাবতলির গরুর হাটে এ অভিযান চালান র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম। এ সময় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ১২ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অভিযানে অংশ নেন ।

অভিযানের বিষয়টি আরটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম। 

তিনি জানান, আসন্ন কুরবানির ঈদকে সামনে রেখে অধিক মুনাফার আশায় ঝিনাইদহের কতিপয় অসাধু ব্যক্তি মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করে গরু মোটাতাজা করছেন। তাই অভিযানে দুইজন ভুয়া চিকিৎসককে ১ বছর করে কারাদণ্ড এবং দুই গরু ব্যবসায়ীকে ২ মাস কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি  স্টেরয়েড দেয়া গরুগুলো বাজার থেকে প্রত্যাহার করতে এবং কোথাও বিক্রি না করে বাড়িতে ফেরত নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

মূলত গরু বিক্রির অল্পদিন আগে স্টেরয়েড হরমোন ইনজেকশন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর ইনজেকশনের কার্যকারিতা পুরোপুরি শেষ হওয়ার আগেই ক্রেতারা গরুকে জবাই করেন। যে কারণে গরুর শরীরে ক্ষতিকর স্টেরয়েড বিপদজনক মাত্রায় থেকে যায়। আর এভাবেই মাংসের মাধ্যমে মানুষের শরীরে প্রবেশ করে থাকে এ ক্ষতিকারক পদার্থটি। স্টেরয়েড হরমোন এতটাই মারাত্মক যে ওই গরুর মাংস রান্না করার পরও নষ্ট হয় না। যা মানুষের শরীরে প্রবেশ করে কিডনি, লিভারসহ গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ বিকল করে দিতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে এই হরমোন বন্ধ্যত্ব, মেয়েদের অল্প বয়সে পরিপক্বতা ও শিশুদের অল্প বয়সে মুটিয়ে যাওয়ার মতো ঘটনাও ঘটতে পারে।

এমসি/এমকে  

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়