অভিযান-মামলা করেও বিআরটিএ’র দুর্নীতি কমেনি: দুদক

প্রকাশ | ১৩ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৩৬ | আপডেট: ১৩ আগস্ট ২০১৮, ১৮:৩০

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

অভিযান পরিচালনা ও মামলা করা হলেও বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি- বিআরটিএ’র নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। অভিযান-মামলা করেও তাদের দুর্নীতি কমানো যায়নি। বললেন দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

আজ সোমবার দুদকের প্রধান কার্যালয়ে ‘দুর্নীতি প্রতিরোধ ও উত্তম চর্চার বিকাশে এফএম বেতারের ভূমিকা’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, আইন তৈরি করা হয় আইন মানার জন্য, তা ভাঙার জন্য নয়। বিআরটিএ’র বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে কমিশন সবচেয়ে বেশি সংখ্যক অভিযান পরিচালনা করেছে। বেশ কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তারপরও তাদের বিষয়ে অভিযোগের অন্ত নেই। কমিশন তাদের কার্যক্রম গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

তিনি বলেন, আসুন, নিজেদের স্বার্থে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের স্বার্থে আইন মেনে চলি।

কিভাবে উল্টোপথে গাড়ি চলে প্রশ্ন রেখে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, এটা অবশ্যই থামাতে হবে। পদচারী সেতু রয়েছে অথচ আমরা কেউ ব্যবহার করবো না এটা হতে পারে না। আমরা যারা আইন প্রয়োগ করবো তারা সবার আগে আইন মানবো- এটা জনসাধারণ দেখতে চায়।

তিনি বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের কেউ যদি আইন অমান্য করে দুর্নীতি করেন, তাহলে তার বিরুদ্ধে অন্যান্য নাগরিকের বিরুদ্ধে যেভাবে আইন প্রয়োগ করা হয়, একইভাবে আইন প্রয়োগ করা হবে। এক্ষেত্রে ঘরে-বাইরে কাউকেই কোনও প্রকার অনুকম্পা দেখানো হবে না।

মতবিনিময় সভায় ভবিষ্যৎ প্রজন্মের দেশপ্রেম ও নৈতিক মূল্যবোধকে আরও শানিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন দুদক চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, কমিশন কর্তৃক বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গঠিত প্রায় ২৫ হাজার ‘সততা সংঘের’ মাধ্যমে দেশব্যাপী বিতর্ক প্রতিযোগিতা, কার্টুন, রচনা প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মসূচির মাধ্যমে তরুণ প্রজন্মকে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে।

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- রেডিও ভূমির শামস সুমন, পিপলস রেডিও’র আব্দুল আউয়াল, রেডিও টুডের মোঃ সোয়েবুল হক, এবিসি রেডিও’র তালাত মাহমুদ প্রমুখ।

এসআর/পি