• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫

শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা আত্মঘাতী: সুজন

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৩ আগস্ট ২০১৮, ২০:৫০ | আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০১৮, ২১:১৭
নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)। আজ শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনটি তাদের সংহতির কথা জানায়।

বিবৃতিতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের সঙ্গে পূর্ণ সংহতি প্রকাশ করে পরিবহন খাতে সকল নৈরাজ্যের অবসান এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠার দাবি জানায় সুজন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়-‘কোমলমতি শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলন বাংলাদেশ, এমনকি বিশ্বের ইতিহাসে এক অভূতপূর্ব ঘটনা। ঘাতক বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থীর করুণ মৃত্যু নিয়ে নৌমন্ত্রীর অসংবেদনশীল আচরণ ও দায়িত্বহীন মন্তব্য এবং সড়কে নৈরাজ্য অবসানে সরকারের আন্তরিকতা নিয়ে সংশয়ই দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটেছে এ আন্দোলনের মাধ্যমে। এই আন্দোলনের পেছনে সর্বস্তরের জনগণের সমর্থনকে সরকারের জন্যে একটি শক্তিশালী সতর্কবার্তা।’

বিবৃতিতে বলা হয়- ‘ইদানীংকালের আন্দোলন ও জনবিক্ষোভগুলোর প্রবণতা থেকে এটি সুস্পষ্ট যে, জনমনে একটি সাধারণ বিক্ষুব্ধতা ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। যা বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে বিস্ফোরিত হচ্ছে এবং বিক্ষোভের রেশ প্রলম্বিত হচ্ছে। সরকারের ক্রমশ কর্তৃত্বপরায়ণ হয়ে ওঠা, বিরুদ্ধমত ও মুক্তচিন্তা দমন, গণতান্ত্রিক পরিসরের সংকোচন এবং নির্বাচনী ব্যবস্থাসহ গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যকারিতা বিনষ্ট হওয়া তথা সার্বিক অর্থে গণতান্ত্রিক ও সুশাসনের অভাবই জনমনে আস্থার সংকট ঘনীভূত করেছে। যার বিস্ফোরণ ঘটছে নানাভাবে।’

এতে আরও বলা হয়-‘রাষ্ট্রের দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং রাজনৈতিক ও নাগরিক শক্তিসমূহের ব্যর্থতার পরিপ্রেক্ষিতেই স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা পথে নেমে এসেছে এবং গত কয়েকদিনে তারা রাজপথের কর্তৃত্ব গ্রহণ করে অভূতপূর্ব জনশৃঙ্খলা তৈরি করেছে। শিক্ষার্থীদের এই ন্যায়সংগত ও শান্তিপূর্ণ আন্দোলন থেকে সব মহলেরই শিক্ষা গ্রহণ করা জরুরি। তরুণতর এই প্রজন্মের এই আন্দোলন এবং তাদের দায়িত্বশীল ও গঠনমূলক কার্যক্রম আমাদের মধ্যে নতুন আশার সূচনা করেছে। এরা যেন ব্যর্থ না হয় তা সরকারসহ সব মহলকেই নিশ্চিত করতে হবে।’

সরকারের উদ্দেশে সুজনের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়-‘এই আন্দোলন মোকাবিলায় শক্তিপ্রয়োগ থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত সরকারের প্রাজ্ঞতার পরিচায়ক। কিন্তু একই সঙ্গে আমরা উৎকণ্ঠার সঙ্গে লক্ষ্য করেছি মিরপুর ও বিভিন্ন স্থানে আন্দোলনকারীদের ওপর সরকার দলীয় সংগঠন ও পুলিশের হামলা। আমরা এসব হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং একইসঙ্গে সতর্ক করতে চাই যে, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ওপর এই ধরনের হামলা ও নিপীড়নের ঘটনা সরকারের জন্য আত্মঘাতী হয়ে দেখা দেবে। আরও ধৈর্য, সহনশীলতা ও আন্তরিকতা নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে আমরা এর অবসানের দাবি জানাই।’

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়