• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

রাজধানীতে ঈদ বকশিসের নামে বাড়তি ভাড়া আদায় (ভিডিও)

সিয়াম সারোয়ার জামিল/ সাজ্জাদ শোভন
|  ১৫ জুন ২০১৮, ১৪:২৫ | আপডেট : ১৫ জুন ২০১৮, ১৪:৩৮
ঈদ উপলক্ষে বাড়তি ভাড়া আদায় চলছে রাজধানীর অাভ্যন্তরীণ রুটের বাসে। দূরপাল্লার তো বটেই, নগর পরিবহনেও লোকাল বাস, সিটিং সার্ভিস, লেগুনা ও এমনকি ইজিবাইকের যাত্রীদের কাছ থেকে ঈদের বোনাসের নামে আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা।

প্রায় প্রতিটি রুটে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে কমপক্ষে ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত। রাজধানী সংলগ্ন জেলাগুলোতে আসা বাসে নেয়া হচ্ছে ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। যাত্রীদের মধ্যে অসন্তোষ থাকলেও তারা বাধ্য হচ্ছেন দিতে। যাত্রীদের মধ্যে সবাই যে সামর্থ্যবান তা নয়, তাদের একটি বড় অংশও নিম্ন আয়ের, বিপাকে তারা।

পরিবহন শ্রমিকদের দাবি, এই অতিরিক্ত ভাড়া তাদের ঈদ করার অবলম্বন। ঈদের দুদিন পর আবার ভাড়া আগের অবস্থানে চলে আসবে বলেও জানান শ্রমিকরা।।

বিহঙ্গ বাসের ড্রাইভার রাহান আল রশিদ আরটিভি অনলাইনকে বলেন, আমরা তো অফিসে চাকরি করি না। বোনাস তো যাত্রীরাই দিব। ভাড়াও তো  বাড়াই নাই। ঈদ বকশিসে যা দেয় আর কী। কেউ কেউ ঝামেলা করে। কিন্তু ঈদের সময় তো। আমাদেরও ঈদ করণ লাগে।

শুক্রবার বিহঙ্গ, আয়াত, এটিসিএল, এফটিসিএল, এমটিসিএল, মালঞ্চ, পরিস্থান, মিডওয়ে, রংধনু পরিবহনসহ সকল রুটে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। ভাড়া বেড়েছে লেগুনায়। 

মিরপুর-মতিঝিল রুটের বিহঙ্গ বাসের যাত্রী আহমেদ উল্লাহ শিকদার আরটিভি অনলাইনকে বলেন,  মিরপুর থেকে কাওরান বাজারের ভাড়া ১৫ টাকা হয়ে গেলো ২৫। এটা কোন যুক্তি? ঈদ মানে সবাই গলা কাটবে? সবাই তো আর ধনী না। বাসে যারা যাতায়াত করে তারা তো নিম্নবিত্তই।

নাখালপাড়ার ইজিবাইক চালক বলেন, রাস্তায় লাইনম্যানের চান্দা বাড়ছে। ১০ টাকার জায়গায় ১৫ টাকা দেওয়া লাগে। যাত্রীর থাইকা না নিলে আমরা এত টাকা কোই পামু? ওরা ঈদের নাম কইরা রোড খরচ বাড়াইছে। আমরাও ঈদের নামে ভাড়া বাড়াইছি।

মতিঝিল থেকে সাভার রুটে চলাচলকারী পরিবহনগুলোতে এ বাড়তি টাকা নেয়া হচ্ছে। ফার্মগেট থেকে সাভার পর্যন্ত ৪০ টাকার ভাড়া নেয়া হচ্ছে ৬০ টাকা। আর গাজীপুর থেকে ফার্মগেট ১২০ থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে। তবে, এ গাড়িগুলো মাঝ পথে কোনো যাত্রী উঠাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ আরটিভি অনলাইনকে বলেন, চাঁদার কারণে বাড়তি ভাড়া আদায় হচ্ছে না। বাড়তি ভাড়া আদায়ের কোনো নির্দেশনা নেই। ঈদের সময় পরিবহন শ্রমিকরা ব্যক্তিগতভাবে ঈদ বকশিস চেয়ে থাকতে পারে। এটা বাড়তি ভাড়া নয়।

এসজে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়