বাংলাদেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগে আগ্রহী আসাম

প্রকাশ | ০৯ মার্চ ২০১৮, ০৮:৪৫ | আপডেট: ০৯ মার্চ ২০১৮, ১১:১০

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

বাংলাদেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ স্থাপনে আগ্রহী আসাম সরকার। এতে বাংলাদেশ ও আসাম পরস্পরের উন্নয়ন সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে পারবে।

বৃহস্পতিবার ভারত সফররত রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের সঙ্গে স্থানীয় হোটেল ভিয়াভন্ত বাই তাজ-এ আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল ও গভর্নর জগদীশ মুখ আলাদা সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে বিমান যোগাযোগের বিষয়টি প্রাধান্য পায়।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বর্তমানে সোলার সামিটে যোগ দিতে ৪দিনের ভারত সফরে অংশ হিসেবে এখন দেশটি উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামে রয়েছেন।

আসামের গভর্নর ও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় রাষ্ট্রপতি প্রতিবেশীদের বৃহত্তর স্বার্থে বাংলাদেশ ও আসামের মধ্যে অধিকতর যোগাযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করার ওপর জোর দেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ ভারতের মতো পরীক্ষিত ও বন্ধু প্রতিবেশীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে সব সময় অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত সরকার ও দেশটির জনগণের আমাদের আন্তরিকভাবে সমর্থন করে। দুর্দিনে সর্বোচ্চ আতিথেয়তা ও সমর্থনের জন্য আমরা ভারতের জনগণের কাছে কৃতজ্ঞ।

উল্লেখ্য সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশের লাখ লাখ মানুষ ১৯৭১ সালে ভারতে বিশেষ করে আসামে আশ্রয় নিয়েছিল।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতিকে স্বাগত জানিয়ে আসামের দুই নেতা বলেন, মোঃ আবদুল হামিদের মতো সত্যিকার দেশপ্রেমিক ও মুক্তিযোদ্ধাকে পেয়ে খুবই আনন্দিত।  দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়ায় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদকে অভিনন্দন জানান তারা। তারা আশা প্রকাশ করেন, আগামী দিনগুলোতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক এক নতুন উচ্চতায় উন্নীত হবে।

পরে রাষ্ট্রপতি রেডিসন ব্লু হোটেলে আসামের গভর্নরের দেয়া এক নৈশভোজে ভাষণ দেন। মুখ্যমন্ত্রী সনোয়াল বক্তৃতা করেন। রাষ্ট্রপতি ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ করেন। সে সময় এখানে তিনি সাব-সেক্টর কমান্ডার ছিলেন।

জেএইচ