দেশে দেশে বসন্ত উদযাপন

প্রকাশ | ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৫:১৫ | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৫:২৩

লাইফস্টাইল ডেস্ক

শীতের ঝরাপাতা আর কোকিলের ডাকের সাথে মিলেমিশে বাংলার বুকে আবারও এলো বসন্ত। ঋতুরাজ বসন্তের আগমনের এই উৎসব বাংলাদেশের জাতি-ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে সকলের নিকট আলাদা মর্যাদা পেয়েছে। শুধু বাংলাদেশেই নয় এ ঋতুর আগমন উপলক্ষে উৎসবে মাতে বিশ্বের নানা প্রান্তের বিভিন্ন দেশও। যদিও সব দেশে একইভাবে একইসময়ে উদযাপিত হয় না দিনটি।

চীন

এশিয়ার প্রভাবশালী দেশ চীনে বসন্ত উৎসব বেশ ঘটা করেই পালন করা হয়। চৈনিক পঞ্জিকা এই উৎসবে চীনারা ঘরে তৈরি করে মজার সব খাবার। চৈনিক এই উৎসব শুধু চীনারাই নয়, উদযাপন করে অধিকাংশ মঙ্গোলীয় নৃগোষ্ঠী।

ইরান

ইরানের নববর্ষ শুরু হয় বসন্ত দিয়ে। এটি প্রায় তিন হাজার বছর ধরে উদযাপিত হয়ে আসছে।  ইরানে এর নাম নওরোজ, মানে নতুন দিন। ইরানের ‘নওরোজ’ আজ ছড়িয়ে পড়েছে মধ্য এশিয়া, দক্ষিণ এশিয়া, চীনের উত্তর-পশ্চিম ও ইউরোপের বলকান অঞ্চলেও।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে গণতন্ত্র হত্যা করেছে সরকার
--------------------------------------------------------

জাপান

জাপানে বসন্তে ফোটে চেরি বা সাকুরা ফুল। আর এই সময়কে ঘিরেই তাদের বসন্ত উদযাপন। সেই সপ্তম শতাব্দী থেকে এই ফুল ফোটার উৎসবে গা ভাসানো শুরু করে জাপানিরা। এ সময় পুরো দেশটাই যেন ছেয়ে যায় চেরি ফুলে প্রকৃতি অপরূপ হয়ে উঠে। এই উৎসবকে বলা হয় হানামি। জাপানের বিভিন্ন অঞ্চলে সাকুরা জানুয়ারিতে ফুটতে শুরু করলেও হানামির মূল আয়োজনটা শুরু হয় মার্চ থেকে।

ভারত

প্রতিবেশী ভারতে বেশ ঘটা করে পালন করা হয় বসন্ত। বিশেষ করে ভারতের শান্তি নিকেতনে। ‘ওরে গৃহবাসী, খোল্ দ্বার খোল্, লাগল যে দোল’এই গান গেয়ে প্রতিবছর শান্তি নিকেতনে উৎসব উদযাপিত হয়। ভারতের অন্য প্রদেশগুলোতে এটা হোলি নামে পরিচিত।  এদিনে একে অপরের গালে আবির মেখে শুভকামনা জানায়। খাবার হিসেবে মিষ্টি, দইয়ের পাশাপাশি আরো থাকে মাঠা ও ভাংয়ের আয়োজন।

থাইল্যান্ড

বসন্ত উৎসবে জল ছিটানো উৎসবে থাইল্যান্ড জেগে উঠে নতুন চেহারায়। এটি শুরু হয় ১৩ এপ্রিল। চলে তিনদিন। প্রথা অনুযায়ী, এই উৎসবে জল ছিটানো হয় শরীর ও মনের কালিমা দূর করার বাসনা নিয়ে। জলে ভিজে মানুষ নিজেকে পবিত্র করে নেয়। ধুয়ে ফেলে গেল বছরের হিংসা, বিদ্বেষ, গ্লানি আর না পাওয়ার বেদনা।

মেক্সিকো

মেক্সিকোর বসন্তকে বলা হয় সান মার্কোস। এটি তাদের সবচেয়ে বড় উৎসব। এ দিনটিতে মেক্সিকোতে সমাগম হয় প্রায় ৭০ লাখ মানুষের। মোরগ লড়াই থেকে শুরু করে সুন্দরী প্রতিযোগিতা, কী নেই সে আয়োজনে! এপ্রিলের ১৪ তারিখ শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানটি চলে প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে।

স্পেন

১ মার্চ সপ্তাহব্যাপী চলে স্পেনে বসন্ত উদযাপন। এ সময় থাকে নাচ, গান, সাজসজ্জা, প্যারেড ও রান্নাবান্নাসহ নানা আয়োজন। এ উৎসবে আতশবাজির ঝলকানিতে জেগে থাকে স্প্যানিশদের রাতগুলো।

বসনিয়া

চিয়াম্বুরিজাদা নামে পরিচিত বসন্ত উদযাপনের এই উৎসবটি আজবভাবে পালন করে বসনিয়ানরা। এইদিনে তারা বিশাল সব গামলাতে ডিম ভুনা করে সবাই মিলে একসাথে বসে খায়। উৎসবের আরেকটি নাম হচ্ছে ‘ফেস্টিভাল অব স্ক্র্যাম্বলড এগস’।

আরও পড়ুন:

কেএইচ/ এমকে