• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

দেবাশীষ ঘোষের নাটকের বই ‘ক্ষোভ’

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২৩:৪০ | আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১২:৩১
অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হয়েছে নাট্যকার, নির্দেশক দেবাশীষ ঘোষের নাটকের বই ‘ক্ষোভ’। সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের তিনটি গল্প অবলম্বনে বইটি প্রকাশ করেছে আগামী প্রকাশনী। প্রচ্ছদশিল্পী গুপু ত্রিবেদী। বইটি পাওয়া যাচ্ছে একুশে গ্রন্থমেলার আগামী প্রকাশনীর ১০ নম্বর প্যাভিলিয়নে।

মঞ্চে অত্যন্ত সহজভাবে উপস্থাপনযোগ্য এবং সব সময়ের উপযোগী এই নাটক তিনটির বক্তব্য।

প্রকাশিত তিনটি নাটক সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের তিনটি গল্পের নাট্যরূপ। ‘দুই সলিমের গল্প’ এবং ‘সাহেব চান্দের ঈদ ভোজন’গল্প দু’টি রাজাকারদের পুনর্বাসন, তাদের উত্থান এবং সাধারণ মানুষের নীরব প্রতিবাদের চিত্র ফুটে উঠেছে। পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে কোনও কোনও শিল্পী তাদের সত্ত্বা বিসর্জন দিয়ে ক্ষমতার কাছাকাছি থাকার জন্য চাটুকারিতায় মগ্ন হয়ে পড়েন। ‘কবি’ গল্পে লেখক অত্যন্ত কৌশলে সেই সব নষ্ট হয়ে যাওয়া শিল্পী সমাজকে ধিক্কার জানিয়েছেন। শিল্পীদের যে স্বাধীন সত্ত্বা আছে এবং তা বিক্রয়যোগ্য নয় তাই ফুটে উঠেছে ‘কবি’ গল্পে। নাটকগুলোতে তাঁর তিন গল্পের মূল বক্তব্য ও সুর ঠিক রেখে নাট্যরূপ দেয়া হয়েছে।

দেবাশীষ ঘোষ একজন সম্পূর্ণ থিয়েটারের মানুষ। ভারত সরকারের বৃত্তি নিয়ে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে নাট্যকলায় স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর পাশ করেন। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ৩০টি নাটক নির্দেশনা দিয়েছেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য নাটক হলো- কথা’ ৭১, গাধা বাজার, শিবাণী সুন্দরী, নুরুন্নাহার পালা, সব সম্ভবের দেশে, নারী নসীমন, ক্ষোভ, এবং অশ্বমেধ যজ্ঞ, অন্য গাজীর অন্য কিসসা, অমাবশ্যার কারা, বাগানিয়া, রাজার চিঠি, অতঃপর হাট্টিমাটিমটিম, নবাব ফয়জুন্নেসা, পিয়র চান, পুনরুত্থান, এখনও দুঃসময়, সে, সোমপুর কথন, বীরাঙ্গনার বয়ান, বাঘ, আত্মকথা, অস্তিত্ব ইত্যাদি।  

নাটক নির্দেশনার পাশাপাশি তিনি কিছু মৌলিক নাটকও লিখেছেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- পুনরুত্থান, এখনও দুঃসময়, প্রহরী, আমাদের মালালা, অতঃপর হাট্টিমাটিমটিম, একটি মিউজিয়ামের গল্প ইত্যাদি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘সে’ গল্পের নাট্যরূপও দিয়েছেন তিনি। প্রায় ১৫টি মঞ্চ নাটকে এবং তানভীর মোকাম্মেল পরিচালিত ‘জীবনঢুলী’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। 

কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১২ সালে নাট্যধারা প্রবর্তিত ‘তনুশ্রী পদক’, ২০০৬ সালে বাচসাস পুরস্কার, ২০০১ সালে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী মাগুরা জেলা সংসদ প্রবর্তিত ‘হরিশ দত্ত নাট্য পদক’ লাভ করেন।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়